সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

পঙ্গুত্বের কাছে হার মানেনি জসিম

ফরিদপুর সংবাদদাতা : পা দিয়ে লিখে শত প্রতিকূলতাকে উপেক্ষা করে এবারের জেএসসি পরীক্ষা সম্পন্ন করল ফরিদপুরের জসীম। এর আগে পিএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয় জসীম। 

জন্ম থেকেই দুটি হাত নেই, তাতে কি হয়েছে, লক্ষ্যে তো পৌঁছাতে হবে। পা দিয়েই চলছে হাতের সব কাজ। অদম্য মানসিকতা ও পড়া লেখার প্রবল ইচ্ছেশক্তি শারীরিক প্রতিবন্ধী জসীম প্রাথমিক স্তর পার করে  নিয়ে গেছে মাধ্যমিকে। জেলার নগরকান্দা উপজেলার তালমা নাজিমুদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবারের জেএসসি পরীক্ষা সম্পন্ন করল সে। নগরকান্দা উপজেলার কদমতলী গ্রামের দরিদ্র ফেরিওয়ালা মো. হানিফ মাতুব্বরের তৃতীয় সন্তান জসীম। অভাবের সংসারে জন্মগতভাবে দুই হাত না থাকায় শিশু জসীমের প্রতি অবহেলাও কম ছিলনা। কিন্তু লেখাপড়ার প্রতি শিশুকাল থেকেই আগ্রহ ছিল তার। গ্রামের অন্য শিশুদের দেখাদেখি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়া শুরু করে সে। কলম ধরতে পারে না তাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক পা’ এর আঙ্গুলে গুঁজে দেন চক পেন্সিল।  শুধু পড়াশোনাই না। স্বাভাবিক শিশুদের মতো খেলাধুলার প্রতিও জসীমের আগ্রহ রয়েছে। শিশুকাল থেকেই গ্রামের অন্য শিশুদের সাথে বিভিন্ন খেলায় অংশ নিয়ে রপ্ত করে নিয়েছে খেলার কৌশল। গানের প্রতিও রয়েছে জসীমের আগ্রহ। নিজের জীবনের গল্পগাঁথা গেয়েও মানুষকে শোনায় সে।  জসীমের ভবিষ্যত যাতে অন্ধকারাচ্ছন্ন না হয় সে জন্য সরকার ও সমাজের বিত্তবানদের সহায়তা কামনা করেন জসীমের পিতা মো. হানিফ মাতুব্বর।  মেধাবী জসীম শিক্ষকদের আন্তরিকতায় মাধ্যমিক পর্যায়ে ভালভাবে উত্তীর্ণ হবে এমনটাই প্রত্যাশা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের। উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে পরিচর্যা পেলে জসীম তার লক্ষ্যে পৌঁছে যাবে বলে তিনি মনে করেন।  উচ্চ শিক্ষা অর্জন করে অন্য প্রতিবন্ধীসহ সমাজের অবহেলিত মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করবে এমনটাই প্রত্যাশা জসীমের।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ