ঢাকা, বৃহস্পতিবার 2 December 2021, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
Online Edition

স্যাটেলাইট চিত্রই বলে দিচ্ছে রোহিঙ্গাদের উপর হামলার ভয়াবহতা

অনলাইন ডেস্ক: মিয়ানমার সরকার সেদেশের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর সেনাবাহিনীর অত্যাচার নির্যাতনের বিষয়টি অস্বীকার করলেও আন্তর্জাতিক মিডিয়া ও মানবাধিকার সংস্থা সমূহের প্রতিবেদন থেকে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বাড়ী-ঘরে আগুন ও ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর প্রমাণ পাওয়া যায়।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের বরাত দিয়ে ব্যাংকক পোস্ট বলেছে, মিয়ানমারের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বেশ কয়েকটি গ্রামে হামলা চালিয়ে এক হাজারেরও বেশি বাড়ীঘরে আগুন দিয়েছে সেনাবাহিনী।

জাতসংঘ জানিয়েছে, গত এক সপ্তায় রাষ্ট্রীয় সহিংসতায় ৩০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম গৃহচ‌্যূত হয়েছে।

চলতি সপ্তাহে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ প্রকাশিত স্যাটেলাইট চিত্র সমূহ থেকে দেখা যায়, মিয়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা গ্রামগুলোতে ৪ শত বাড়িঘরে আগুন দেয়া হয়েছে। 

রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত প্রচার মাধ্যম গত ৬সপ্তায় কমপক্ষে ৭০ জন রোহিঙ্গা মুসলিম নিহত ও ৪শ গ্রেফতারের কথা স্বীকার করলেও মানবাধিকার কর্মীরা মনে করেন, প্রকৃত সংখ্যা আরো অনেক বেশি।

স্যাটেলাইট চিত্রের বিশ্লেষণ করে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের রিপোর্টে বলা হয়, রাখাইন রাজ্যে কমপক্ষে ৪শ বাড়িঘর আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে।

সংস্থাটির এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্রাড এডামস বলেছেন, নতুন স্যাটেলাইট চিত্র সমূেহর ভিত্তিতে বলা যায়, আগে যতটা ধারণা করা হয়েছিল, প্রকৃত অবস্থা তার চেয়েও অনেক ভয়াবহ।তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, "বার্মিজ [মায়ানমার] কর্তৃপক্ষ অবিলম্বে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ন্যায়বিচার ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে জাতিসংঘের সহায়তায় তদন্ত স্থাপন করা উচিত," ।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের সংখ্যা প্রায় ১১ লক্ষ । কিন্তু সরকার তাদেরকে নাগরিকত্বসহ সব ধরনের মানবিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে।

সংখ্যাগুরু বৌদ্ধরাও রোহিঙ্গা মুসলমানদের ঘৃণা করে এবং তারা রোহিঙ্গাদেরকে বাঙ্গালি বা বহিরাগত মনে করে। রোহিঙ্গা মুসলমানদের চলাচলের উপরও রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। সমপ্রতি দেশটির সীমান্তে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে রোহিঙ্গাদের উপর নতুন করে হামলা শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী।তাদের অভিযোগ, রোহিঙ্গাদের সাথে বিদেশী মুসলিম জঙ্গিদের যোগাযোগ রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ