মঙ্গলবার ৩০ নবেম্বর ২০২১
Online Edition

সদরপুরে আগুনে দগ্ধ স্কুলছাত্রের মৃত্যু

ফরিদপুর সংবাদদাতা : জেলার সদরপুর উপজেলায় স্কুলছাত্র আগুনে পুড়ে মারা গেছে। নিহত রাব্বি ভাষানচর ইউনিয়নের বাজার কান্দি কারিরহাট গ্রামের শেখ ইউনুছের পুত্র।
শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে এ অগ্নিকা- সংঘটিত হয়। অগ্নিকাণ্ডে তিনটি পরিবারের ৫টি বসতঘর, ১০টি গবাদি পশু ছাগল,হাস-মুরগী,কবুতর, চাল ডাল, আসবাবপত্রসহ প্রায় ৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা যায়। ক্ষতিগ্রস্তরা হলেন, ইউনুছ শেখ, বানেজ শেখ ও মৃত আনেস শেখের পরিবার।
রাব্বি শেখ ভাষানচর ইউনিয়নের ৩৩নং ডিক্রির চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র। সকালে ঘুম থেকে উঠে প্রতিবেশীর শস্যক্ষেতে কাজ করতেন সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত। কাজ সেরে বিদ্যালয়। স্কুল শেষ করে বিকেলে আবার বাবার ওষুধের টাকা জোগাড় করতে প্রতিবেশীদের শস্যক্ষেতে পেয়াজ-রসুন লাগানো কাজে ব্যস্ত থাকতো। শুক্রবার ছুটির দিনে কাজের শ্রমমূল্য বেশি থাকায় প্রায় সারাদিন প্রতিবেশী মোবারেক মোল্যার পেঁয়াজ ক্ষেতে কাজ করেছিলো রাব্বি।
সন্ধ্যা হতেই ক্লান্ত শরীরে ঘুমিয়ে পড়ে শিশুটি। কাজ সেরে অসুস্থ স্বামীকে সন্ধ্যার দিকে স্থানীয় ডাক্তারের নিকট নিয়ে যায় আকলিমা বেগম। ঔসময় রাব্বি ঘরে ঘুমানো ছিল বলে জানা যায়।
এলাকাবাসীর ধারণা বাড়ির রান্না ঘরের চুলার আগুন থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে। পরে ত্বরিত গতিতে আগুনের লেলিহীন শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে এ দুর্ঘনা ঘটে।
সরজমিনে দেখা যায়, একদিকে পোড়া আগুনের গন্ধ অন্যদিকে পোড়া মাংসের গন্ধ বাতাসে ছড়াচ্ছে। উঠানের এক পাশে শিশু রাব্বির আগুনে পোড়া বিকৃত লাশটি পড়ে রয়েছে। পড়ে রয়েছে আগুনস্থলে গবাদি পশুর লাশ। মর্মান্তিক ঘটনাটিকে দেখে নির্বাক হয়ে দাঁড়িয়ে থাকে শত শত গ্রামবাসী।
রাব্বির মা আকলিমা বেগম জানান, তার স্বামী শেখ ইউনুছ(৫০) ৩ বছর যাবৎ প্যারালাইসিস রোগে ঘরে পড়া রয়েছেন। স্বামীর ওষুধ আনতে বাড়ির পাশের কারিরহাট বাজারে যান। ওষুধ নিয়ে ফেরার পথে আগুনের লেলিহীন শিখা দেখতে পেয়ে আকলিমা বেগম আর্তচিৎকার করে। প্রতিবেশীরা আসতে আসতেই কেড়ে নেয় আগুনে সবকিছু।
ঘটনার সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোকসানা রহমান তাৎক্ষণিক সরজমিনে পরিদর্শন করেন। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ ৫ হাজার টাকা ও কম্বল,লুঙ্গি শাড়ি বিতরণ করেন। এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করে সরকারের পক্ষ থেকে আর সাহায্যের আশ্বাস দেন। অন্যদিকে ভাষানচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ছমির বেপারী ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে নগদ ৫ হাজার টাকার আর্থিক প্রদান করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ