মঙ্গলবার ০২ মার্চ ২০২১
Online Edition

বগুড়ায় প্রেম প্রত্যাখ্যাত হয়ে স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

বগুড়া অফিস ঃ বগুড়ায় একতরফা প্রেমে হতাশ হয়ে ফিরোজ ইসলাম (১৬) নামের এক  স্কুল ছাত্র গলায় ফাঁস দিয়ে আতœহত্যা করেছে। সে  জেলার সারিয়াকান্দী উপজেলার ভেলাবাড়ী ইউনিয়নের জোড়গাছা গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে। বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ৮ টার দিকে নিজ বাড়ির একটি বাতাবী লেবু গাছের সাথে ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করে ফিরোজ।
জানা যায়, ফিরোজ ইসলাম জোড়গাছা উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণীতে লেখাপড়া করতো।  একই স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ফিরোজ ভালোবাসতো। কিন্তু ওই ছাত্রী তাকে পাত্তা দিতো না এবং তার পরিবার বিষয়টি মেনে নেয়নি। ফিরোজ বুধবার বিকেলে আবারো ওই ছাত্রীর বাড়িতে যায় এবং তাকে ভালোবাসার কথা জানায়। এতে ওই মেয়ে এবং তার মা রেগে যান এবং ফিরোজকে বকা দেন। এঘটনার পর ফিরোজ বাড়ি ফিরে আসে এবং বিষয়টি বন্ধুদের জানায়। রাতে কাউকে কিছু না বলে বাড়ির পার্শ্বে তার দাদার কবরের কাছে একটি বাতাবী লেবুর গাছের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আতœহত্যা করে। খবর পেয়ে সারিয়াকান্দি থানার পুলিশ ঘটনার স্থল পরিদর্শন করেছে ।
সারিয়াকান্দি  থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) এ এস এম  ওয়াহিদুজ্জামান,জানান ছেলেটির বাবা দেশের বাইরে থাকেন। পড়া লেখায় সে খুব ভাল নয়। টেস্ট পরীক্ষায় ফেল করায় তার মা তাকে বকা দেয়ায় সে অভিমান করে গলায় ফাস দিয়ে আতœহত্যা করেছে। তবে জোড়গাছা  বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: আব্দুর রশিদ জানান, ফিরোজ পড়া লেখায় ভাল ছিল।  টেস্ট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। আতœহত্যার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার স্কুলের এক ছাত্রীকে ভালোবাসা নিয়ে আতœহত্যা করেছে বলে তিনি শুনেছে।
 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ