শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১
Online Edition

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে কিশোরের মৃত্যু

কুমিল্লা (দক্ষিণ) সংবাদদাতা : কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মীর আব্দুল মান্নান প্রকাশ মান্না (১৬) নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। নিহত মান্না উপজেলার কাজী জোড়পুকুরিয়া গ্রামের মীর সফিকুর রহমানের পুত্র। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় ওই গ্রামের আব্দুল হামিদ চেয়ারম্যান বাড়ি সংলগ্ন একটি ডোবায় মাছ ধরার প্রস্তুতিকালে পানি সেচে ব্যবহারিত পাম্পে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, মান্না তার পাশের গ্রাম ভুলুয়াপাড়ার মিজানুর রহমান মির্জা এর মালিকানাধীন মৎস্য খামারে চাকরি করতেন। তার বোনের বিয়ে উপলক্ষে গত কয়েক দিন ছুটিতে ছিলেন মান্না। বৃহস্পতিবার সকালে মান্না নিজ গ্রামের একটি ডোবা সেচে মাছ ধরার জন্য মৎস্য খামার মালিক মিজানুর রহমানের পানি সেচের পাম্প নিয়ে ওই পাম্পে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে পানিতে পড়ে যায়। কিছুক্ষণ পর খামার মালিক তাকে খুঁজতে গিয়ে পানিতে পড়া অবস্থায় দেখতে পায়। মিজানুর রহমানের শোর চিৎকারে স্থানীয়রা এসে মান্নাকে উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
খামার মালিক মিজানুর রহমান বলেন, সে তার বোনের বিয়ে উপলক্ষে ছুটিতে ছিলো। সকালে বোনের বাড়ির আতœীয়দের জন্য মাছ ধরতে আমার খামারে ব্যবহৃত  বৈদ্যুতিক পাম্প নিতে চায় মান্না। আমি প্রথমে নিষেধ করলেও পরে তার অনুরোধে পাম্পটি দিতে বাধ্য হই। কিছুক্ষণ পর আমি তার মাছ ধরার স্থলে গিয়ে তাকে পানিতে পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার করলে পার্শ্ববর্তী বাড়ির লোকজন এসে তাকে হাসপাতেলে নিয়ে গেলে ডাক্তার তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানান।
এদিকে, মান্নার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় ছোট ছেলেকে হারিয়ে মান্নার বাবা মা জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে আছে। তার আতœীয়-স্বজনের আহাজারিতে এলাকার পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে। এলাকার সবার মুখে একটাই কথা মান্না ছিলেন খুব ভদ্র ন¤্র ও পরোপকারি। যে কারো বিপদে তিনি এগিয়ে আসতেন বলে ও জানান এলাকাবাসী। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় জানাযা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ