সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু করার গোপন ষড়যন্ত্রে জড়িত ট্রাম্প পরিবার

১০ নবেম্বর, ডেইলি বিস্ট/ডেইলি স্টার ইউকে : ইলুমিনাতি গ্রুপের সদস্য ছাড়া কেউ যুক্তরাষ্ট্রের প্রসিডেন্ট হতে পারেন না এমন একটি  কথা প্রচলিত আছে। রহস্যজনক বিষয়ে যাদের আগ্রহ আছে তারা এই গ্রুপটির নাম জেনে থাকতে পারেন বা তাদের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে আন্দাজ করতে পারেন।

মজার ব্যাপার হচ্ছে এই সংগঠনটি প্রকাশ্য কোন সংগঠন নয়। আবার খুব গোপনীয়ও নয়। তাই তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা অনেকটা বাতাসে মামলা করার মতো। তবে এবছর সেপ্টেম্বর মাসে এমনই এক কাজ করেছিলেন, জ্যানি ও গ্রেগরি কেইহান নামের দুই ব্যক্তি। ট্রাম্প ইলুমিনাতির সদস্য এই অভিযোগে ক্যালিফোর্নিয়ার স্থানীয় আদালতে মামলা করেছিলেন তারা।

পেশায় আইনজীবী গ্রেগরি কেইহান ও তাঁর স্ত্রী জ্যানি অভিযোগ করেছেন, ট্রাম্প ও তাঁর পরিবার নয়া বিশ্বব্যবস্থা ( নিউ ওয়ার্ল্ড অর্ডার) প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রে সরকার পরিবর্তনের এক চক্রান্তের সঙ্গে জড়িত। এই নয়া বিশ্বব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা ও তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু করার এক গোপন ষড়যন্ত্রে ট্রাম্প পরিবার গত কয়েক দশক ধরে জড়িত।

একটু মনোযোগ দিয়ে শুনুন (নিউ ওয়ার্ল্ড অর্ডার) শব্দটি এখন ট্রাম্পের মুখে শোনা গেলেও এটি শত বছরের পুরনো স্লোগান। তাদের দলের সদস্যরা এই স্লোগানটি বাস্তবায়নের জন্য যুগে যুগে কাজ করে যাচ্ছেন। নতুন বিশ্ব ব্যবস্থার অর্থ হচ্ছে একই ব্যবস্থার অধীনে সারা বিশ্বকে নিয়ে আসা। এই লক্ষ্যেই যুক্তরাষ্ট্র সারা পৃথিবীতে তাদের ক্ষমতা বিস্তারের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

তবে এটা ভাবার কোন কারণ নেই যে হিলারি নির্বাচনে হেরেছেন বলে তিনি ইলুমিনাতির সদস্য না। পিতা বুশ ও পুত্র বুশসহ ওবামা হিলারি সবাই এই গোপন গ্রুপের সদস্য। হিলারি ট্রাম্পের প্রতিযোগিতাটাও আসলে তাদের নিজেদের মধ্যে।

কেইহান দম্পতির মামলায় অভিযোগ করা হয়েছিলো, নতুন বিশ্বব্যবস্থার সদস্য হওয়ার কারণে ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশগ্রহণে আইনগতভাবে অযোগ্য। অন্য আরেক মামলায় তাঁরা অভিযোগ করেছেন, মার্কিন রাষ্ট্রব্যবস্থা উৎখাতের এই ষড়যন্ত্র আজ থেকে নয়, বিশ শতকের গোড়া থেকে; প্রেসিডেন্ট থিয়োডোর রুজভেল্টের সময় থেকে শুরু।

ওই দম্পতি আরও অভিযোগ করেছেন ট্রাম্প তথাকথিত ‘ইলুমিনাতি’ গোপন ধর্মীয় চক্রেরও সদস্য। আঠারো শতকের শেষ পর্যায়ে কুসংস্কার ও ভ্যাটিকান-ভিত্তিক ক্যাথলিক প্রভাব ক্ষুণœ করার লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রতিবাদী গোপন উদ্যোগ নেওয়া হয়। এদের সবাইকেই ইলুমিনাতি নামে অভিহিত করা হয়। কেইহান দম্পতির ভাষ্য, আসলে ইলুমিনাতি একটি কমিউনিস্ট ষড়যন্ত্র, ট্রাম্প সেই ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তাঁর লক্ষ্য মার্কিন সরকার উৎখাত করে চিরস্থায়ী একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ