সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

মসুল ঐতিহাসিকভাবে তুরস্কের -এরদোগান

১০ নবেম্বর, এ আর মিডিয়া ডটকম : ইরাকের কর্মকর্তারা বলেছেন, জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) কবল থেকে মসুল শহর মুক্ত করতে চলমান সামরিক অভিযানে আঙ্কারার সেনাবাহিনীর সহযোগিতার কোনো প্রয়োজন নেই। এ বক্তব্যের জবাবে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান দাবি করেছেন, ইরাকের মসুল ও সিরিয়ার আলেপ্পো শহর ঐতিহাসিকভাবে তুরস্কের অংশ। রোববার বুরসা শহরের এক শিক্ষাবিষয়ক সেমিনারে এ কথা বলেন তিনি। খবর তুরস্কের এআরমিডিয়া ডটকমের। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগান দাবি করেছেন, ইরাকের মসুল শহর ঐতিহাসিকভাবে তুরস্কেরই অংশ। বিশ্লেষকরা বলছেন, তুর্কি প্রেসিডেন্টের এ ধরনের উদ্ভট মন্তব্য আঞ্চলিক বা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই বরং এটি কেবল দেশের অভ্যন্তরীণ প্রচারণা ও জনগণকে ধোঁকা দেয়ার কাজে লাগতে পারে। মসুল থেকে দায়েশ সন্ত্রাসীদের উৎখাতে সামরিক অভিযানের আজ সপ্তম দিন এবং ইরাকি সেনা ও স্বেচ্ছাসেবী বাহিনী দায়েশ উৎখাতে ব্যাপক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এমন সময় মসুল উদ্ধার অভিযান চলছে যখন ওই অভিযানে তুর্কি সেনারা অংশ নেবে কি নেবে না তা নিয়ে বাগদাদ ও আঙ্কারার মধ্যে তীব্র বাদানুবাদ চলছে। ইরাকের কোনো কোনো সূত্র বলছে, প্রেসিডেন্ট এরদোগান ইরাকের মসুলকে তুরস্কের অংশ বলে যে দাবি করেছেন তা থেকে বোঝা যায়, তুর্কি প্রেসিডেন্ট সাবেক ওসমানি সাম্রাজ্যের চেতনার ভিত্তিতে কথা বলছেন। অর্থাৎ তিনি নয়া সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখছেন যা খুবই হাস্যকর।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ