ঢাকা, বৃহস্পতিবার 28 January 2021, ১৪ মাঘ ১৪২৭, ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

নিজেদের মাঠে বার্সাকে হারিয়ে প্রতিশোধ নিল ম্যানসিটি

অনলাই ডেস্ক: ইলকি গুনডোগানের দুই গোলে ভর করে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফিরতি লেগের ম্যাচে বার্সেলোনাকে ৩-১ গোলে হারাল পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি। মঙ্গলবারের ওই জয়ে বার্সেলোনার মাঠে হারের প্রতিশোধটিও নেয়া হয়ে গেল সিটিজেনদের। সাবেক ক্লাব বার্সেলোনা সফরে গিয়ে প্রথম লেগে ৪-০ গোলে হার নিয়ে ফিরেছিল গার্দিওরা এন্ড কোং।

ম্যাচের শুরুতে অবশ্য আর্জেন্টাইন সুপার স্টার লিওনেল মেসির দেয়া গোলে লীড পেয়েছিল স্প্যানিশ জায়ান্টরা। তবে বেশ সাবলিল ভাবেই লড়াইয়ে ফিরে আসে ম্যানচেস্টার সিটি। দলের পক্ষে গুনডোগানের দুই গোল ছাড়াও ফ্রি কীক থেকে বাকী গোলটি আদায় করেছেন কেভিন ডি-ব্রুইন। এই জয়ের ফলে কাতালানদের টানা পাঁচ ম্যাচে জয়ের রথটি থামিয়ে দিয়েছে সিটিজেনরা। পাশাপাশি চ্যাম্পিয়ন্স লীগে সি’ গ্রুপের শীর্ষ দল লুইস এনরিখের বার্সার বেশ কাছাকাছি পৌছে গেল পেপ গার্দিওলার ম্যানসিটি। দুই দলেরই হাতে আরো দুটি করে ম্যাচ অবশিষ্ট রয়েছে।

খেলা শেষে গার্দিওলা বলেন,‘ এখানে আমাদের প্রথম গোলটিই সবকিছুর পরিবর্তন ঘটিয়ে দিয়েছে। ছেলেরা অনুধাবন করেছে যে তাদের খারাপ সময় কেটে গেছে। আজ আমরা দারুন একটি ধাপে পা রাখলাম। একটি অসাধারণ ক্লাবের বিপক্ষে আমরা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপুর্ন ম্যাচ উপহার দিয়েছি। এখন ছেলেরা অনুধাবন করেছে এবং বলছে, বাহ আমরা সেরা দলের বিপক্ষে জয় পেয়েছি।’

টানা ছয় ম্যাচে জয়হীন থাকার পর এই ম্যাচটি গার্দিওলার ব্যক্তিত্বকে আরো বেশী করে ফুটিয়ে তুলেছে। আগামী ২৩ নভেম্বর জার্মান ক্লাব বরুশিয়া ময়েনচেনগ্লাদবেচের বিপক্ষে একটি জয় এখন ম্যানচেস্টার সিটিকে পাইয়ে দিতে পারে শেষ ষোলতে খেলার টিকিট। অপরদিকে সেলটিকের বিপক্ষে একটি মাত্র পয়েন্ট আদায় করতে পারলেই বার্সেলোনা পৌছে যাবে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শেষ ষোলতে।

খেলা শেষে বার্সা কোচ এনরিখ বলেন, এক গোলে এগিয়ে থাকার পরও এই হারটি আমাদেরকে লজ্জায় ফেলে দিয়েছে। ওই গোল আদায়ের পর থেকেই আমাদের দলের খারাপ সময় শুরু হয়। আমরা এর পর বেশীক্ষন বলের নিয়ন্ত্রন রাখতে পারিনি। আর আমাদের ওই ব্যর্থতার সুযোগ ভালভাবেই গ্রহন করেছে সিটি।’

মঙ্গলবার রাতে ইত্তিহাদ স্টেডিয়ামে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলা শুরু করে স্বাগতিকরা। তবে প্রতিআক্রমণ থেকে ২১তম মিনিটে মেসির অসাধারণ এক গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। নিজেই ডি-বক্সের কাছ থেকে নেইমারকে লম্বা পাস দিয়ে এগিয়ে যান স্বাগতিক ডি-বক্সের দিকে। যেখানে নেইমার বলটি ফেরত পাঠালে সেটিকে বেশ দক্ষতার সঙ্গে নিয়ন্ত্রনে নিয়ে জালে জড়ান মেসি (১-০)। তবে পিছিয়ে পড়েও দমে যাননি গার্দিওলার শীষ্যরা দ্বিগুন শক্তিতে ঝাপিয়ে পড়ে সফরকারীদের ওপর। সফলতাও পেয়ে যায় দ্রুত। ম্যাচের ৩৯তম মিনিটে সার্জি রবের্তোর পাস ধরে ফেলে আগুয়েরো বল বাড়িয়ে দেন স্টার্লিংকে। তার ক্রস থেকে বল জালে জড়িয়ে দেন জার্মান তারকা গুনডোগান (১-১)।

দ্বিতীয়ার্ধে ৫১তম মিনিটে দুর্দান্ত এক ফ্রি-কিকে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন ডি-ব্রুইন (১-২)। ম্যাচের ৭৪তম মিনিটে ফের গোল করে জয়ের ব্যবধান বাড়িয়ে দেন ডি-ব্রুইন।-বাসস

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ