রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

হোমিওপ্যাথি : প্রশ্ন আছে অনেক ॥ অধ্যাপক ডা. আহমদ ফারুক

প্র. মহিলাদের স্তনে চাকা কিংবা ব্যথা থাকলে কি ক্যান্সার হতে পারে? স্তনে ব্যথার সাথে মানসিক চাপের কোন সম্পর্ক আছে কি?
-নাজমা, রংপুর।
উ : স্তনে চাকা অনেক কারণে হতে পারে। এ চাকা থেকে ক্যান্সার হবার সম্ভাবনা কম। আর স্তনে ব্যথা স্তন ক্যান্সারের ক্ষেত্রে কদাচিৎ ঘটে। মানসিক চাপের কারণেও স্তনে ব্যথা হতে পারে।
প্র. তোতলামির জন্য ভাল ওষুধ চাই।
-শামিম, চট্টগ্রাম।
উ : তোতলামি একটি মানসিক ব্যাধি। কদাচিৎ শারীরিক অঙ্গসমূহের ত্রুটি এর জন্য দায়ি হতে পারে। বংশগতির প্রভাবেও হতে পারে। তাই রোগীর বিস্তারিত ইতিহা জেনে চিকিৎসা দেয়া ভাল। প্রাথমিক ভাবে লাইকোপডিয়াম-৩০ শক্তি, দিনে একবার, ৭ দিন সেবন করে অপেক্ষা করুন।
প্র: আমি প্রচণ্ড মানসিক চাপে ভুগছি। আমার দাম্পত্য জীবনে সমস্যা হচ্ছে। পরামর্শ চাই।
-আফজাল, ঢাকা।
উ : আপনার জন্য সাইকোথেরাপি প্রয়োজন। হোমিওপ্যাথি ওষুধও আপনি সেবন করতে পারেন। তবে কোন ধরনের উত্তেজক ওষুধ ব্যবহার করবেন না।
প্র : গর্ভবতী মহিলার প্রসব বেদনা স্থিতিশীল করার জন্য কোন ওষুধ বেশ কার্যকর?
-ডা. সহিদুল্লাহ, কক্সবাজার।
উ : “বেলেডোনা ৩০ শক্তি” বেশ কার্যকর।
প্র: ঋতু পরিবর্তনকালীন সর্দি জ্বরের জন্য ওষুধ চাই।
-মান্নান, যশোর।
উ : একোনাইট, ডালকামারা রাসটক্স, লক্ষণ অনুযায়ী প্রয়োগ করা যায়। তবে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবহার করা ভাল।
প্র: আপনার এক লেখায় দাবি করেছেন যে, নি:সন্তান দম্পতিদের জন্য হোমিওপ্যাথি ওষুধ কার্যকর। অথচ আমি দীর্ঘ ৫ বছরেও হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় কোন ফল পাইনি। আসলেই কি কোন সফলতা আছে?
-নাইম, ঢাকা।
উ : হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় নিঃসন্তান দম্পতিরা ভাল ফল পেতে পারেন প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত চিকিৎসকের চিকিৎসায়। অনেক দম্পতির মুখে হাসি ফুটেছে বলে প্রমাণ আছে। তবে সবাই যে উপকার পাবেন এমনটি বলা যায় না।
প্র : প্রাথমিক আঘাতের জন্য হোমিওপ্যাথি ওষুধ আছে কি?
-রতন, চট্টগ্রাম।
উ : “আর্নিকা-৩০ শক্তি” সবার কাছে রাখুন।
প্র. গর্ভাবস্থায় অনেকের চুল বেশি পড়ে। কোনো ব্যবস্থা আছে কি?
-ডা. নাজমা সুলতানা, ঢাকা।
উ. হ্যাঁ, এ সময় আপনি আপনার রোগীর জন্য খাবার-দাবারের ব্যবস্থাপনা দেয়ার পাশাপাশি ‘ল্যাকেসিস’ ঔষধটি প্রয়োগ করতে পারেন। ন্যাট্রাম মির্ডর এবং সিপিয়া ঔষধ দু’টিও এ ক্ষেত্রে ভাল কাজ করে।
প্র. আপনার প্রশ্নের উত্তরের গত সংখ্যায় আঁচিল সম্পর্কে একটি সুন্দর গাইড লাইন দিয়েছেন। কিন্তু বড় বড় আঁচিল সম্পর্কে কিছুই বলেননি। এবার জানাবেন কি?
-ডা. আবদুস সবুর মন্ডল, ফরিদপুর।
উ. বড় বড় আঁচিলের জন্য ডালকামারা, নাইট্রিক এসিড, থুজা ভাল ঔষধ।
প্র. রাগ করার পর যদি ঘুম না হয়, তার জন্য কি ঔষধ ব্যবহার করব?
-ডা. সুলতান আহমদ, ঢাকা।
উ. এজন্য আপনি কলোসিন্থ, স্ট্যাফিস্যাগরিয়া এবং নাক্স ভম ঔষধগুলো স্মরণ করুন।
প্র. ঘুম ঘুম ভাব। অথচ বিছানায় গেলে ঘুম নাই। এজন্য ভাল ঔষধ চাই।
ড. সাবিহা খন্দকার, ঢাকা।
উ. প্রয়োগ করুন ‘এমব্রাগ্রিসিয়া’ অথবা বেলেডোনা।
প্র. ফল খেলে পেটে ব্যথা। হোমিওপ্যাথিতে কি কি ঔষধ রয়েছে?
-ডা. মাহবুব হাসান, চট্রাগ্রাম।
উ. ফল খেলে পেট ব্যথা হলে ‘লাইকোপডিয়াম’কে স্মরণ করুন। তারপর মাথায় রাখুন আর্সেনিক, চায়না, ন্যাট্রাম ফস ইত্যাদি।
প্র. ডিওডেনাল আলসার। ফলপ্রদ ঔষধ চাই।
-ডা. মুসফিকুর রহমান, কুমিল্লা।
উ. রোগীর ইতিহাস ভাল ভাবে জেনে নিন। সাধারণভাবে ডিওডেনাল আলসার রোগে আর্জেন্টাম নাইট, কেলি বাই, ইউরেনিয়াম নাইট বেশ ফলপ্রদ ঔষধ।
প্র. ফিমোরাল হার্নিয়া । কোনো ঔষধ আছে কি?
-ডা. কফিল উদ্দিন মুন্সি, ঢাকা।
উ. হ্যাঁ, আপনি লাইকোপডিয়াম এবং নাক্স ভম ঔষধ দু’টি প্রয়োগ করে দেখতে পারেন।
প্র. মাথা ব্যথা। গরম কাপড় দ্বারা পেঁচিয়ে রাখলে আরাম। কোন কোন ঔষধ ভাল কাজ করে?
-ডা. দেলোয়ার হোসেন শিকদার, ঢাকা।
উ. এরূপ মাথা ব্যথায় রামটক্স, সাইলিশিয়া প্রধান ঔষধ। নাক্স ভম, জেলসেমিয়াম এবং ইগনেশিয়া ঔষধগুলোও ভাল কাজ করে।
প্র. মাথার পিছনে ব্যথা। ফ্যান ছাড়লে আরাম। কি ঔষধ প্রয়োগ করব?
-ডা. আবদুল হালিম মৃধা, ঢাকা।
উ. ‘কারবো ভেজ’ প্রয়োগ করুন।
প্র. রোগী ছাত্র, লিখতে গেলে চোখ ব্যথা। কোন ঔষধ আছে কি?
-ডা. মৃনাল কান্তি দে, চট্টগ্রাম।
উ. হ্যাঁ, তাকে ‘ক্যালকেরিয়া ফ্লোর’ প্রয়োগ করুন।
প্র. ঠান্ডা লেগে কান ব্যথা। কি কি ঔষধ ভাল কাজ করে?
-ডা. সামন্ত চৌধুরী, কক্সবাজার।
উ. বিবেচনা করুন- ডালকামারা, জেলসেমিয়াম, মার্কসল এবং পালসেটিলা।
প্র. কিছু মা বলেন, শিশু খেতেই চায় না। কেন? এর প্রতিকার কি?
উ. শিশু খেতে চায় না, এটা অনেক মায়েরই অভিযোগ। এ অভিযোগের জন্য অনেক ক্ষেত্রে মা’ই দায়ী। কারণ, মা শিশুকে জোর করে খাওয়াতে চান। না খেলে শিশুকে ধমক দেন। ভয় দেখান। এভাবে মায়ের জোরাজুরি এবং শিশুর ক্রমাগত বাধাপ্রদান অবশেষে খাওয়ার ইচ্ছা হারিয়ে ফেলে শিশু। উপরন্তু খাওয়াকে ভয় পাবে। খাওয়া এবং ভয় সম্পর্কযুক্ত হয়ে যাবে। এভাবে মা যখন খাবার হাতে এগোতে থাকে, শিশু তখন আর্তনাদ করে ওঠে। তাই মনে রাখবেন, খাওয়াটা একটা আনন্দের ব্যাপার। জোর করে, ভয় দেখিয়ে শিশুকে খাবার খাওয়ানো যাবে না। গল্প করে, আনন্দ দিয়ে, হাসি মুখে শিশুকে খাওয়াতে হবে। শিশুকে তার পছন্দমত খেতে দিতে হবে। না খেতে চাইলে জোর করে কখনই খাওয়ানো ঠিক নয়। খাওয়ার জন্য শিশুর সাথে ইতিবাচক আচরণ করতে হবে।
প্র: আপনি একজন এ্যাজমা বিশেষজ্ঞ। তাই জানতে চাচ্ছি, কোনো শিশুর ছোটবেলায় এ্যাকজিমা থাকলে তার এ্যাজমা হওয়ার সম্ভাবনা কতটুকু?
-ডা. মাহবুবা আলম, ঢাকা।
উ: এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। আপনাকে মনে রাখতে হবে, এ্যাকজিমা এবং এ্যাজমা, দু’টোই এ্যালার্জি থেকে হয়ে থাকে। তাই শৈশবে যে শিশুর বার বার একজিমা হয়, পরবর্তীকালে তার এ্যাজমা বা হাঁপানী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এজন্য এ ধরনের শিশুদের একজন হোমিওপ্যাথিক এ্যাজমা বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা দেয়া প্রয়োজন।
প্র: অনেক শিশু আঙ্গুল চোষে। এটা কি কোনো সমস্যা? সমাধান চাই।
-ডা. সালেহ আহমদ মজুমদার, ঢাকা।
উ: সাধারণত তিন মাস বয়স থেকে শিশু বুড়ো আঙ্গুল চুষতে থাকে। এই বয়সে তার প্রধান প্রবৃত্তি হল কিছু চোষা। ৩-৪ মাস বয়সে শিশু যদি বুড়ো আঙ্গুল চুষতে আরম্ভ করে, তার অর্থ সে যথেষ্ট চোষার সুযোগ পায় না। এজন্য শিশুকে বেশি বেশি মায়ের দুধ চুষতে দেয়া উচিত। এক্ষেত্রে অভ্যাস পরিবর্তনই মূল কথা। ওষুধ হিসেবে হোমিওপ্যাথিতে রয়েছে ইপিকাক, ক্যামোমিলা এবং ক্যাল কার্ব।
প্র: আপনি আপনার অভিজ্ঞতা থেকে ভাইরাল ফিভার হলে ‘রাস টক্স’ ব্যবহার করার কথা বলেন। এছাড়া অন্য কোন ওষুধ কি ভাল ফল দেয় না?
উ: হ্যাঁ, আমরা ভাইরাল ফিভার চিকিৎসায় ‘রাস টক্স’ একটি পরীক্ষিত ওষুধ বলে তা ব্যবহারের জন্য চিকিৎসকদের পরামর্শ দিয়ে তাকি। এ ব্যাপারে আমরা দীর্ঘদিন যাবত কাজ করে যাচ্ছি। এছাড়া অন্যান্য ওষুধও ভাইরাল ফিভার-এ কাজ করে। যেমন জেলসেমিয়াম, ব্যাপটেসিয়া, কারসিনোসিন, প্রভৃতি ওষুধও কাজ করে। এ্যাকোনাইট, আর্সেনিক, বেলেডোনা, ব্রায়োনিয়া প্রভৃতি ওষুধ অহরহ ব্যবহৃত হচ্ছে এবং রোগীর উপকারও পাচ্ছেন।
প্র: রোগ নির্ণয় অর্কাইটিস (Orcheitis)। ছোটবেলায় মাম্পস (mumps) হয়েছিল। সমাধান চাই।
-ডা. এসএম শিকদার, ঢাকা।
উ: আর্কাইটিস। ছোটবেলায় মাম্পসের ইতিহাস থাকলে প্রধানত ‘মার্ক সল’ ভালো ওষুধ। এ ধরনের রোগীদেরকে আমি প্রথমে ‘পালসেটিলা’ প্রয়োগ করি। তারপর অবস্থা বিবেচনায় অন্য কোনো ঔষধ।
প্র: অতীত স্মৃতি স্মরণ করতে পারে না। এ ধরনের রোগীদের কি ওষুধ ভালো কাজ করে?
-ড. আঃ মতিন শেখ, কুমিল্লা।
উ: এ ধরনের রোগীদের জন্য ন্যাট্রাম মির্ডর এবং নাইট্রিক এসিড ভাল কাজ করে।
প্র: আমি ডিএইচএম কোর্সের ছাত্র। একটি ভালো অর্গানন বইয়ের নাম চাই।
সামন্ত চক্রবর্তী, চট্টগ্রাম।
উ: অর্গানন ৬ষ্ঠ সংস্করণের সর্বশেষ অনুবাদ ‘Organon of the Medical Art’ এখন সহজ প্রাপ্য। যার অনুবাদক হচ্ছেন- Steven Decker. ভারতের বি. জেইন পাবলিশার্স-এর প্রকাশক।
প্র: হোমিওপ্যাথিতে এখন মাদার টিংচার বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে। আপনি এর পক্ষে না বিপক্ষে?
-ডা. ওয়াদুদ, ঢাকা।
উ: আমি একজন হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক। আমার আদর্শ হচ্ছে শক্তিকৃত ওষুধ।
প্র: হোমিওপ্যাথি জগতে জর্জ ভিথোলকাস এখন খুব পরিচিত। তার বই এবং সফ্টওয়্যার বাজারে বেশ বিক্রি হচ্ছে। তার সম্পর্কে আপনার মন্তব্য কি?
-ডা. আশিশ শংকর, ঢাকা।
উ: জর্জ ভিথোলকাস একজন ইঞ্জিনিয়ার। তিনি এখন হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা পদ্ধতির উন্নয়নে ভূমিকা পালন করছেন। আমি তার ভূমিকাকে স্বাগত জানাই। তবে তিনি বিজ্ঞানী হানেমানকে কতটা অনুসরণ করছেন সে ব্যাপারে প্রশ্ন রয়েছে। তাছাড়া তার মৌলিক কাজ খুব কম। প্রকৃতপক্ষে তিনি পেশাগত চিকিৎসক নন।
প্র: কাশি। ঘুমাতে গেলেই বৃদ্ধি। ওষুধ চাই।
-ডা. আবদুল হক, ঢাকা।
উ: কস্টিফাম, ল্যাকোসিস, লাইকোপডিয়াম।
প্র: রোগী বৃদ্ধ। কাশি। শীতকালেই বাড়ে। কি কি ওষুধ আছে?
-ডা. শফিকুল ইসলাম শেখ, ঢাকা।
উ: ক্রিয়োজোট, সরিনাম।
প্র: রোগী ঘুমাতে গেলেই মৃত মানুষের স্বপ্ন দেখে। ভাল ওষুধ চাই।
-ডা. সোয়াব উদ্দিন, ঢাকা।
উ. প্রথমে ‘এ্যানকার্ডিয়াম’কে স্মরণ করুন। তারপর রয়েছে- ক্যালকেরিয়া কার্ব, চেলিডোনিয়াম এবং থুজা।
প্র: রজঃ নিবৃত্তির সময় লিউকোরিয়া। এ ধরনের রোগীদের জন্য ওষুধ বলে দিন।
-ডা. সাদিয়া আফরিন খান, ঢাকা।
উ: ‘স্যাবাইনা’ প্রয়োগ করুন।
প্র: ওষুধ প্রয়োগের বিধি-বিধান জানার জন্য একটি বইয়ের নাম চাই।
-ডা. সুব্রত, বরিশাল।
উ: অর্গানন অব মেডিসিন ভালভাবে পড়ুন। এছাড়া ‘ওষুধ প্রয়োগ বিজ্ঞান’ বইটি হাতের কাছে রাখুন। বইটি সংগ্রহ করতে চাইলে ১০০ টাকা বিকাশ করুন এই নম্বরে: ০১৭৪৭-১২৯৫৪৭, কুরিয়ার সার্ভিসে পাঠানো হবে।
প্র: ভারতের অনেক চিকিৎসক বাংলাদেশে আসেন বিভিন্ন সেমিনারে এবং চিকিৎসার জন্য? মন্তব্য চাই।
-ডা. আহমদ সরকার, কুষ্টিয়া
উ: ভারতের হোমিওপ্যাথি শিক্ষা অনেক উন্নত। অনেক ভাল ভাল চিকিৎসক রয়েছেন ভারতে। যে উচ্চমানের চিকিৎসকরা বাংলাদেশে তেমন একটা আসেন না। বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে অনেক সাধারণমানের চিকিৎসককে বাংলাদেশে আসতে দেখা যায়।
উত্তরদাতা: নির্বাহী পরিচালক/অধ্যাপক
ইন্সটিটিউট অব হোমিওপ্যাথি মেডিসিন অ্যান্ড রিসার্চ
প্রশ্ন পাঠাতে এসএমএস করুন: ০১৭৪৭-১২৯৫৪৭

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ