বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

হিলারির সমর্থনে নিউ ইয়র্কে মুসলিমদের সমাবেশ

সংগ্রাম ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদে ডেমোক্রেট পার্টির প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের সমর্থনে নিউ ইয়র্কে সমাবেশ করেছে একদল মুসলিম নাগরিক। আমেরিকান মুসলিম পলিটিক্যাল অ্যাকশন কমিটির (অ্যামপেক) ব্যানারে রোববার দুপুরে জ্যাকসন হাইটসের ডাইভার্সিটি প্লাজায় এ সমাবেশ হয়। সূত্র : বিডি নিউজ ২৪, এনডিটিভি।

রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প যাতে কোনোভাবেই জয়ী না হতে পারে সে লক্ষ্যে কাজ করতে যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিম নাগরিক ও অভিবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান ৩০টি অঙ্গরাজ্যের মুসলিম জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিরা।

নিউ জার্সির প্রসপেক্ট পার্ক সিটির মেয়র মো. তাহের খায়রুল্লাহ বলেন, “মুসলিম-আমেরিকানরা ঐক্যবদ্ধ হলে হিলারির জয় নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। আমাদের আছে ৩৩ লাখের ভোট ব্যাংক, যা কাজে লাগিয়ে ট্রাম্পের মতো জাতি ও ধর্মবিদ্বেষীদের ধরাশায়ী করতে হবে।”

সমাবেশে ডেমোক্রেটিক পার্টির এশিয়ান-আমেরিকান ককাসের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ার মো. আলম বলেন, এবারের নির্বাচন মুসলিম-আমেরিকানদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করেছে।

ট্রাম্পকে ‘মুসলিম ও অভিবাসীদের শত্রু’ অ্যাখ্যা দেন ক্যালিফোর্নিয়ার ডেমক্র্যাটিক পার্টির নির্বাহী প্রতিনিধি তালাত খান। তিনি বলেন, “নারীর প্রতিও তার বিদ্বেষ রয়েছে। হিলারিকে বিজয়ী করে এগুলোর সমুচিত জবাব দিতে হবে।”

‘ব্যালট যুদ্ধে অস্তিত্বের জানান দিতে’ মুসলিম-আমেরিকানদের সংগঠিত হওয়ার আহ্বান জানান ফ্লোরিডার আমেরিকান মুসলিম ডেমোক্রেটিক ককাসের প্রেসিডেন্ট গাজালা সালাম।

আইওয়ার পার্লামেন্ট মেম্বার আব্দুস সামাদ বলেন, “ধর্ম, বর্ণ, জাতি-গোষ্ঠী নির্বিশেষে সব মানুষের নিরাপদ আস্তানা যুক্তরাষ্ট্র। এ সত্যের বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে ৮ নভেম্বরের নির্বাচনে হিলারিকে জয়ী করতে হবে।”

ডেমোক্রেটিক পার্টির জাতীয় কমিটির সদস্য খোরশেদ খন্দকার, ক্যানসাসের নেতা রেহান রেজা, মুসলিম-আমেরিকান সংগঠক গিয়াস আহমেদ, এন মজুমদার, জাকারিয়া চৌধুরী, মাফ মিসবাহ, নার্গিস আহমেদ, জাকারিয়া মাসুদ জিকো, রফিকুল ইসলাম ডালিম, মাজেদা উদ্দিন, আনিস আহমেদ ও সোলায়মান আলী অন্যদের মধ্যে সমাবেশে বক্তব্য দেন।

হিলারিকে ভোট দেওয়ার পাশাপাশি কংগ্রেসের বিভিন্ন পদে মুসলিম-আমেরিকানদের জয়ী করতে রাজপথে আরও জোরাল ভূমিকা রাখার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তারা।

ব্যবধান মাত্র এক পয়েন্টের

হোয়াইট হাউসের নির্বাচনের দৌড় প্রতিযোগিতায় এগিয়ে ছিলেন হিলারি ক্লিনটন কিন্তু এফবিআই তার ইমেইল ফাঁস করার পর ডোনান্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ব্যবধান মাত্র ১ পয়েন্টের।

সর্বশেষ এবিসি নিউজ/ওয়াশিংটন পোস্টের জরিপে দেখা যায় ডেমোক্রেটিক প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প থেকে ৪৬-৪৫ শতাংশ অর্থাৎ মাত্র ১ পয়েন্টে এগিয়ে।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের সিয়েনা কলেজ রিসার্চ ইনস্টিটিউট জরিপে দেখা যায়, ফ্লোরিডা, যেখানে শিল্পপতিরা অবশ্যই জয়ী হয়’ ট্রাম্প সেপ্টেম্বরের মধ্যে চার পয়েন্ট ব্যবধান কমিয়ে এক পয়েন্টে নিয়ে আসেন।

মার্কিন নির্বাচনে ২০০ মিলিয়ন নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে প্রায় ২০ মিলিয়ন ভোট দেওয়া হয়ে গেছে। কারণ এটি মার্কিন নির্বাচনের একটি অংশ।

নিউ মাউন্ট অলিভ ব্যাপটিস্ট চার্চ বলেন, আমরা কিছু বড় সমস্যা মোকাবেলা করতে পেরেছি, আমরা প্রেসিডেন্ট হিসেবে এমন কাউকে চাই যিনি শান্তি ফিরিয়ে আনবে।

তিনি বলেন, রাজনৈতিক পরিবেশের কোলাহলে আমরা বিভ্রান্ত হবো না। একটি নৈতিবাচক, ঘৃণ্য,গোঁড়া দৃষ্টি প্রত্যাখ্যান করার সবচেয়ে বড় উপায় হলো ভোট। তাই ভোটের মাধ্যমে আমরা শান্তিপ্রিয় ব্যক্তিকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে চাই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ