শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

নারায়ণগঞ্জের ৭ খুন মামলায় ৪ আসামীকে অভিযোগ পড়ে শোনান হলো

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা : নারায়ণগঞ্জের আলোচিত ৭ খুন সংক্রান্ত দুটি মামলার প্রধান আসামী নূর হোসেন, র‌্যাবের চাকরিচ্যুত তিনজন কর্মকর্তা আরিফ হোসেন, তারেক সাঈদ ও এম এম রানাকে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পড়ে শোনানো ও তাদের বক্তব্য গ্রহণ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সাত খুনের ঘটনার অভিযুক্ত হিসাবে আখ্যায়িত করে অভিযোগ পড়ে শোনানো হলে তারা আদালতের কাছে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন। গতকাল সোমবার সকাল সোয়া ১০টা হতে দুপুর পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেনের আদালতে ওই কার্য সম্পাদিত হয়। পরে আদালত আগামী ৩১ অক্টোবর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য্য করেছেন। তবে আদালতের পক্ষ হতে নূর হোসেনসহ ৪জনকে সাফাই সাক্ষী দেয়া হবে কিনা জানতে চাওয়া হলে তারা সাফাই সাক্ষী দিবে না বলে জানিয়ে দেয়।  
নারায়ণগঞ্জ আদালতের পিপি ওয়াজেদ আলী খোকন জানান, গতকাল সোমবার চার আসামীকে তাদের বিরুদ্ধে সাত খুনের ঘটনার ষড়যন্ত্র, হত্যা, গুমের অভিযোগ পড়ে শোনানো হয়। পরে অভিযোগগুলো সত্য কিনা, সাফাই সাক্ষী দিবেন কিনা, কোন বক্তব্য আছে কিনা, বিচার চান কিনা প্রশ্নগুলো আসামীদের করা হলে তারা জবাবে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন, সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন এবং কোন সাফাই সাক্ষী দিবেন না বলে জানান। তবে আরিফ হোসেন ও এম এম রানা তাদের পৃথক লিখিত বক্তব্য আদালতে জমা দেন।
এদিকে আদালত সূত্রে জানা গেছে, মেজর আরিফ হোসেনের লিখিত বক্তব্যে বলা হয়েছে তাকে ১৮ দিন রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করে ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে জোর করে জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়েছে। তিনি প্রকৃতপক্ষে সাত খুনের সাথে জড়িত নন। এছাড়া তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন এবং সুষ্ঠু বিচার প্রার্থনা করেন।
জানা গেছে, সাত খুনের ঘটনায় দুটি মামলা হয়। একটি মামলার বাদী নিহত আইনজীবী চন্দন সরকারের মেয়ে জামাতা বিজয় কুমার পাল ও অপর বাদী নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি। দুটি মামলাতেই অভিন্ন সাক্ষী হলো ১২৭ জন করে।

মসজিদের জানালার গ্লাস ভাঙচুর
নারায়ণগঞ্জ শহরের আমলপাড়াস্থ বড় মসজিদে ঢিল ছুড়ে মসজিদের থাই গ্লাস ভেঙ্গে ফেলেছে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা। তিনজন দুর্বৃত্ত মসজিদে ঢিল মেরে দ্রুত পালিয়ে যায়। গত রোববার গভীর রাতে শহরের আমলপাড়া মসজিদে এঘটনা ঘটে। মসজিদে ঢিল মেরে গ্লাস ভেঙ্গে ফেলা হামলার শামিল বলে স্থানীয় মুসল্লিরা মনে করেন। এ ঘটনায় গত সোমবার দুপুরে মসজিদের খাদেম ইয়াসিন বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় জিডি দায়ের করেছেন। 
মসজিদের খাদেম ইয়াসিন জানান, গত রোববার গভীর রাতে অজ্ঞাতনামা তিনজন দুর্বৃত্ত মসজিদের গ্লাস লক্ষ্য করে ঢিল নিক্ষেপ করে দ্রুত পালিয়ে যায়। তবে অন্ধকার থাকায় তাদেরকে চেনা যায়নি।
নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান, এটা কোন কুলাঙ্গার কিংবা নেশাখোরদের কাজ হবে। এ ঘটনায় মসজিদের খাদেম জিডি করেছেন। আমরা ঘটনাটি তদন্ত করছি। আশা করছি শীঘ্রই দুর্বৃত্তদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হবো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ