রবিবার ৩১ মে ২০২০
Online Edition

সাদা পোশাকধারী পুলিশ তাকে আটকের পর নৃশংসভাবে হত্যা করেছে -মিয়া গোলাম পরওয়ার

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ঝিনাইদহ শহর শাখার আমীর মোঃ জহুরুল ইসলামকে গত ৭ সেপ্টেম্বর একদল সাদা পোশাকধারী পুলিশ তুলে নিয়ে যাওয়ার পর তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করার ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, ঝিনাইদহ শহর শাখা জামায়াতের আমীর মোঃ জহুরুল ইসলামকে পুলিশের এস আই আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল সাদা পোশাকধারী পুলিশ গত ৭ সেপ্টেম্বর আটক করে নিয়ে যাওয়ার পর তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ নৃশংস ঘটনার নিন্দা জানানোর কোন ভাষা নেই। 

গতকাল শুক্রবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, মোঃ জহুরুল ইসলামকে পুলিশ আটক করে নিয়ে যাওয়ার প্রায় দেড় মাস অতিবাহিত হওয়ার পর গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার গওহর ডাঙ্গা গ্রামে মধুমতি নদীর তীরে ১৯ অক্টোবর তার লাশ পাওয়া গেছে। উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঝিনাইদহ শহর শাখার আমীর মোঃ জহুরুল ইসলাম ৭ সেপ্টেম্বর দুপুর ২টার দিকে ঝিনাইদহ শহরের হামদস্থ দিশারী প্রি-ক্যাডেট স্কুলে যান। সাথে সাথেই পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা ঝিনাইদহ পুলিশের এসআই আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল সাদা পোশাক পরিহিত পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে একটি সাদা মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। তারপর উক্ত স্থানে লটকানো সিসি ক্যামেরাটি বাজেয়াপ্ত করা হয়। এরপর তাকে চোখ বেঁধে মাইক্রোবাসে তুলে অজানা স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। অতঃপর প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা তাকে গ্রেফতারের কথা সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করে। 

পুলিশের হেফাজতে থাকাবস্থায় মোঃ জহুরুল ইসলামকে নৃশংসভাবে হত্যা করার ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ