ঢাকা, সোমবার 30 January 2023, ১৬ মাঘ ১৪২৯, ৭ রজব ১৪৪৪ হিজরী
Online Edition

শাবি ছাত্রলীগ নেতার ছুরিকাঘাতে আহত ছাত্রী লাইফ সাপোর্টে

অনলাইন ডেস্ক: সিলেটের এমসি কলেজে পরীক্ষা দিতে এসে ছাত্রলীগ নেতার চাপাতির কোপে আহত সিলেটের সরকারি মহিলা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

তার অবস্থা ভালো নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

অবস্থার অবনতি হওয়ায় মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৬টার দিকেই নার্গিসকে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

এরআগে সোমবার বিকেলে গুরুতর জখম হওয়ার পর তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মধ্যরাত পর্যন্ত সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

স্কয়ার হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান, ওসমানী মেডিকেলে অস্ত্রোপচার হলেও তার অবস্থার উন্নতি না হওয়া ভোরেই অ্যাম্বুলেন্সযোগে স্কয়ারে নিয়ে আসা হয়। ভর্তির পর পরিস্থিতি দেখে তৎক্ষণাৎ নার্গিসকে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য,সোমবার বিকেলে পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়ার পর এমসি কলেজের পুকুরপাড়ে প্রকাশ্যে তাকে এলোপাতাড়ি ভাবে মাথা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে জখম করে সন্ত্রাসী বদরুল।

এ সময় খাদিজাকে বাঁচাতে কয়েকজন শিক্ষার্থী এগিয়ে গেলে বদরুল তার হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদেরকেও তাড়া করে। পরে উপস্থিত জনতা তাকে আটক করে গনধোলাই দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

খাদিজা সিলেট সরকারী মহিলা কলেজের স্নাতক ২য় বর্ষের ছাত্রী। সে বিশ্বনাথের আউশা এলাকার সৌদী আরব প্রবাসী মাসুক মিয়ার মেয়ে। নার্গিসের বাড়িতে লজিং থাকত শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) অর্থনীতি বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র ও শাবি ছাত্রলীগের সহসম্পাদক বদরুল আলম। সেখানে থাকাকালে মেয়েটির কাছে প্রেম নিবেদন করে সে। নার্গিস বারবার প্রত্যাখ্যান করে।

শাহপরাণ থানার ওসি শাহজালাল মুন্সি জানান, বিকেল ৫টার দিকে এমসি কলেজ কেন্দ্রে স্নাতক পরীক্ষা শেষে বের হলে খাদিজাকে উপর্যপুরি ছুরিকাঘাত করে বদরুল ইসলাম। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ