ঢাকা, শুক্রবার 18 September 2020, ৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ মহররম ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

এবার রিপাবলিকান নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের তোপের মুখে ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক: এক খোলা চিঠিতে ৫০ জন রিপাবলিকান নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের তীব্র সমালোচনা করেছেন। ওই খোলা চিঠিতে তারা বলেন, ‘নির্বাচিত হলে ট্রাম্প হবেন মার্কিন ইতিহাসে সবচেয়ে বেপরোয়া প্রেসিডেন্ট।’

ওই খোলা চিঠিতে ৫০ রিপাবলিকান নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ স্বাক্ষর করেছেন। এর আগে চলতি বছরের মার্চে এমনই এক চিঠিতে এখানে স্বাক্ষরকারীদের অনেকেই স্বাক্ষর দিতে চাননি। স্বাক্ষরকারীদের কেউ ট্রাম্পকে ভোট দেননি বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

ট্রাম্পের সমালোচনায় ওই চিঠিতে বলা হয়, ‘তার সাধারণ জ্ঞান কম এবং মার্কিন সংবিধান, মার্কিন আইন, ধর্মীয় সহনশীলতা, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা ও স্বাধীন বিচার বিভাগের প্রতি বিশ্বাসের অভাব রয়েছে।’

ওই তালিকায় রয়েছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ-এর সাবেক পরিচালক মাইকেল হেইডেনের নাম। ট্রাম্প সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট হওয়ার মতো চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, গুণাবলী এবং অভিজ্ঞতা তার নেই।’

স্বাক্ষরকারীদের মধ্যে আরও রয়েছেন, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন নেগ্রোপন্টি, রবার্ট জোয়েলিক।

ফ্লোরিডায় রিপাবলিকান পার্টির মুখপাত্র ওয়াদি গাইতান জানিয়েছেন, ট্রাম্পকে প্রার্থী করায় তিনি রিপাবলিকান পার্টি ছাড়তে যাচ্ছেন।

সোমবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশের সহায়ক লেজলি ওয়েস্টিন জানিয়েছেন, তিনি হিলারি ক্লিনটনকে ভোট দেবেন। তবে রবিবার জর্জ বুশ মার্কিন সংবাদমাধ্যম টেক্সাস ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, তিনি ট্রাম্পকেই সমর্থন দিচ্ছেন।

সাবেক সিআইএ পরিচালক মাইকেল হেইডেন

ট্রাম্পকে সমর্থন না দেওয়াদের তালিকায় আরও রয়েছেন, ফ্লোরিডার সাবেক গভর্নর জেব বুশ, সাবেক ফার্স্ট লেডি বারবারা বুশ, সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী উইলিয়াম কোহেন, অ্যারিজোনার সিনেটর জেফ ফ্লেইক, সাউথ ক্যারোলিনার সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম, ম্যারিল্যান্ডের গভর্নর ল্যারি হোগান, ওহিওর গভর্নর জন কাসিচ, ইলিনয়ের সিনেটর মার্ক কার্ক, ম্যাসাচুসেটসের সাবেক গভর্নর মিট রমনি, ফ্লোরিডার কংগ্রেস সদস্য ইলিয়েনা রস-লেহতিনেন এবং নেব্রাস্কার সিনেটর বেন স্যাশি। 

ওই খোলা চিঠিতে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়, তিনি বহু বছর ধরে চলে আসা রিপাবলিকান পররাষ্ট্রনীতি একাধিকবার ভঙ্গ করেছেন। চিঠিতে বলা হয়, সামরিক জোট ন্যাটো-র প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের শ্রদ্ধাশীল থাকা উচিত কিনা, তাকে ট্রাম্প প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন। তিনি নিপীড়নকে সমর্থন করেছেন। এমনকি দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপানকে পারমাণবিক অস্ত্র দেওয়া উচিত বলেও তিনি পরামর্শ দিয়েছেন। এক মুক্ত বিশ্বের নেতা হিসেবে তিনি মার্কিন নৈতিক কর্তৃত্বকে দুর্বল করেছেন বলে চিঠিতে ট্রাম্প সম্পর্কে অভিযোগ করা হয়।

সূত্র: বিবিসি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ