ঢাকা, শুক্রবার 7 August 2020, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৬ জিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

রাশিয়ার প্রতি ট্রাম্পের আহ্বান: হিলারির ইমেইল হ্যাক করুন

অনলাইন ডেক্স : যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে সরকারি কাজে ব্যক্তিগত ই-মেইল ব্যবহারের অভিযোগ ওঠার পর হিলারি ক্লিনটন ত্রিশ হাজার ই-মেইল তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করেননি।
এদিকে মিসেস ক্লিনটনের ইমেইল অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে সেগুলো প্রকাশ করতে রাশিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।
যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রতিপক্ষ প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের ইমেইল হ্যাক করতে রাশিয়াকে উৎসাহ যোগাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছে ডেমোক্র্যাটরা।
কয়েকদিন আগে ডেমোক্র্যাট দলীয় আরেক প্রার্থী বার্নি স্যান্ডার্সের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া সংক্রান্ত কিছু ইমেইল ফাঁস হবার পর প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মন্তব্য করেছিলেন, এর পেছনে রাশিয়ার হাত থাকতে পারে। এরপরই এই বিতর্কের সূত্রপাত।
মি. ট্রাম্প বলছেন রাশিয়া, যদি তুমি এ বক্তব্য শুনে থাকো, আমি আশা করি হারিয়ে যাওয়া সেই ত্রিশ হাজার ইমেইল তুমি খুঁজে বের করতে পারবে। আমার ধারণা এজন্য আমার দেশের গণমাধ্যম একদিন তোমাদের ধন্যবাদ দেবে।


ইতিমধ্যেই নিজের বক্তব্যের জন্য আলোচিত সমালোচিত মি. ট্রাম্প, নিজের স্বভাবসুলভ হালকা মেজাজেই ঐ বক্তব্য রেখেছিলেন।
কিন্তু এখন সেটিই হয়ে দাঁড়িয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়াইরত দুই প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বীর প্রধান বিতর্ক।
যদিও ঐ বক্তৃতার পরই নিজের টুইটারে তিনি লিখেছিলেন যদি কেউ হারানো মেইলগুলো খুঁজে পায়, তাহলে সেগুলো এফবিআই এর কাছে তুলে দেয়া উচিত হবে।
কিন্তু তাতে শেষ রক্ষা হয়নি। এখন অভিযোগ দাঁড়িয়েছে, ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কমিটির ইমেইল হ্যাকিংএর জন্য রাশিয়া দায়ী এবং তা করতেও উৎসাহ যুগিয়েছেন মি. ট্রাম্প।
যদিও রাশিয়া এবং মি. ট্রাম্প উভয়েই এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
মি. ট্রাম্প বলছেন, এটি ছিল একটি দূর কল্পনা। এটা এতো হাস্যকর। কিন্তু রাশিয়ার আমাদের দেশের জন্য কোন সম্মান নেই। তারা এটা করতে পারে, কিংবা হয়তো চীন করেছে বা নিজের বিছানায় শুয়ে অন্য কেউ। কিন্তু এটা দেখিয়ে দিচ্ছে আমাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা কত দুর্বল।
এখন রাশিয়া এই ইমেইল হ্যাকের সঙ্গে জড়িত ছিল এমন সম্ভাবনা বুধবার রাতে নাকচ করে দেন মি. ট্রাম্প।
তবে, ডেমোক্রেটিকরা বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথমবারের মত একজন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী বিদেশী শক্তিকে নিজের প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে নজরদারি করতে আহ্বান জানিয়েছে।
এদিকে, ডেমোক্রেটিক দলের কনভেনশন এখনো শেষ হয়নি।
সূত্র: বিবিসি বাংলা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ