বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

রাজশাহীর আওয়ামী লীগ নেতা টুকু নিহত হবার ঘটনায় নাটকীয় মোড় স্ত্রীর মামলা দায়ের ॥ ২ বন্ধু আটক

রাজশাহী অফিস : গুলীবিদ্ধ হয়ে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও রেলওয়ের প্রথম শ্রেণীর ঠিকাদার জিয়াউল হক টুকু নিহত হওয়ার ঘটনা নাটকীয় মোড় নিতে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে পাঁচজনকে আসামী করে গত সোমবার বিকেলে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন টুকুর স্ত্রী শামসুন নাহার লতা। মামলায় চারজনের নাম উল্লেখসহ পাঁচজনকে আসামী করা হয়েছে।
আসামীরা হলেন, ঢাকার মতিঝিল এলাকার নয়ন (৪৫), রাজশাহী মহানগরীর বোসপাড়া এলাকার সালাউদ্দিনের ছেলে তরিকুল ইসলাম (৪৮), মহিষবাথান এলাকার ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম (৪৬) ও সুলতানাবাদের কাপড় ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন (৪৮) এবং অজ্ঞাত আরো একজন। পুলিশ জানায়, আসামীদের মধ্যে অজ্ঞাত একজনসহ তিনজন পলাতক। আর রবিউল ও জসিমকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার সময় তারা পাঁচজন সেখানে ছিলেন। আটক দুইজনের বরাত দিয়ে বলা হয়, রবিউল ও জসিম আগে থেকেই টুকুর চেম্বারে বসা ছিলেন। পরে একই মাইক্রোবাসে তার চেম্বারে আসেন নয়ন, তরিকুল ও এক অজ্ঞাত ব্যক্তি। মাইক্রোবাস থেকে নয়ন ও তরিকুল নেমে টুকুর চেম্বারে গেলেও অজ্ঞাত ওই ব্যক্তি গাড়ি থেকে নামেননি। তবে গুলীবিদ্ধ হওয়ার পর ওই মাইক্রোবাসে টুকুকে হাসপাতালে নামিয়ে দিয়ে তিনজন পালিয়ে যান। তারাই প্রচার করেন টুকু তার নিজের পিস্তল পরিস্কার করার সময় গুলীবিদ্ধ হয়েছেন। পুলিশ আরো জানায়, এটি একটি হত্যাকাণ্ড। তাকে পেছন থেকে গুলী করা হয় বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে নয়নকে আটকের পর জানা যাবে সেখানে কী হয়েছে। এদিকে, টুকুকে গুলীটি পেছন থেকেই করা হয়েছে বলে নিশ্চিত হয়েছেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ফরেনসিক বিভাগের অধ্যাপক ডা. এনামুল হক। তিনি জানান, টুকুর পিঠের দিকে যে ফুটো আছে তা তুলনামূলক ছোট। এছাড়াও বুকের হাড়ের ভেতরের অংশে গুলীর জখম পাওয়া গেছে। এ থেকে বিষয়টি অনেকটাই স্পষ্ট যে, টুকুকে পেছন থেকে গুলী করা হয়েছে। গুলী হাড়ের ভেতরের অংশ জখম করে অল্প উপর দিয়ে বেরিয়ে যায়। এছাড়াও গুলীতে ফুসফুসের নিচের অংশও জখম হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ