বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

মোটরসাইকেল আমদানি শুল্ক বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে এমএমইএবি

স্টাফ রিপোর্টার : দেশীয় মোটরসাইকেল শিল্প রক্ষা এবং বিকশিত করতে মোটরসাইকেল আমদানির ওপর শুল্ক (সম্পূরক শুল্ক) বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে মোটরসাইকেল ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টারস এসোসিয়েশন বাংলাদেশ (এমএমইএবি)।
গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)’র সঙ্গে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রাক-বাজেট আলোচনায় সংগঠনটির পক্ষ থেকে এ প্রস্তাব করা হয়। আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান। বাজেট আলোচনায় এনবিআর সদস্য ও ইলেকট্রনিক্স, ইলেকট্রিক এবং পরিবহন খাতের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনায় এমএমইএবি এর পক্ষ থেকে জানানো হয়, বর্তমানে দেশে উৎপাদিত মোটরসাইকেল মোট বাজারের প্রায় ২৫ শতাংশ দখলে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু মোটরসাইকেল আমদানির মাধ্যমে সম্ভাবনাময় এই শিল্পকে ধ্বংস করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে।
এমএমইএবি জানায়, কোনো পণ্যের ওপর আমদানি শুল্ক বাড়লে স্বাভাবিক নিয়মে ওই পণ্যের বাজার মূল্য বৃদ্ধি পায়। কিন্তু মোটরসাইকেল আমদানির ওপর শুল্ক বাড়ানো হলেও এর দাম না বেড়ে বরং কমেছে। রফতানিকারক দেশসমূহ ২০১৫-১৬ অর্থবছরে আগের চেয়ে ১০ থেকে ২০ শতাংশ কমমূল্যে মোটরসাইকেল রফতানি করছে। ফলে ১৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা কম দামে বাজারজাত করা হচ্ছে। এতে দেশীয় মোটরসাইকেল শিল্প অসম প্রতিযোগিতার সম্মুখীন হচ্ছে।
সংগঠনটির পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, একটি সম্পূর্ণ মোটরসাইকেল উৎপাদনে অসংখ্য যন্ত্রাংশের প্রয়োজন। অর্থনৈতিক ও গুণগতমান রক্ষায় এককভাবে কোনো প্রতিষ্ঠান এসব যন্ত্রাংশ উৎপাদন করতে পারে না। তাই এই শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত যন্ত্রাংশের  ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ