বুধবার ২৭ মে ২০২০
Online Edition

বন সংরক্ষক অফিসে টেন্ডার বাক্স ছিনতাই

খুলনা অফিস : খুলনা বিভাগীয় বন সংরক্ষক কার্যালয়ে টেন্ডার বাক্স ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ঠিকাদার সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে। ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে বন কর্মকর্তা আব্দুস সালাম খালিশপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন।  সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সিআরসিডব্লিউ প্রকল্পের আওতায় বিশ্ব ঐতিহ্যের সুন্দরবন রক্ষায় স্মার্ট পেট্রোলিংয়ে ব্যবহৃত ডিজেল ক্রয়ের দরপত্র আহ্বান করে বন মন্ত্রণালয়। পূর্ব ও পশ্চিম বন বিভাগে মোট ৬টি দরপত্র বিক্রি হয়। গত সোমবার দরপত্র দাখিলের শেষদিনে দু’টি দরপত্র জমা পড়ে। বয়রাস্থ খুলনা আঞ্চলিক বন কর্মকর্তার কার্যালয়ে দুপুর আড়াইটার দিকে সাধারণ ঠিকাদাররা দরপত্র জমা দিতে আসলে সিন্ডিকেটের ঠিকাদাররা তাদের বাধা দেয়। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে বাক-বিতাণ্ডার একপর্যায়ে সিন্ডিকেটের ক্ষমতাসীনরা টেন্ডার বাক্স নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। একপর্যায়ে বন কর্মকর্তাদের অনুরোধে টেন্ডার বাক্স বের করে দিলেও সাধারণ ঠিকাদাররা দরপত্র জমা দিতে পারেননি। সরকারি মূল্যে ডিজেল সরবরাহের জন্য এক বছর যাবত এই দরপত্রের মেয়াদকাল থাকে।  দু’টি দরপত্র জমাদানকারী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের নাম জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়ে খুলনার বন সংরক্ষক মো. জহির উদ্দিন আহমেদ বলেন, খুলনায় পূর্ব বন বিভাগে তিনটি ও পশ্চিম বন বিভাগে তিনটি করে মোট ছয়টি দরপত্র বিক্রি হয়েছিল। জমা দেবার শেষদিনে গত সোমবার দু’টি দরপত্র জমা হয়েছে। কিছু লোক দুষ্টুমি করে টেন্ডার বক্স নিয়ে গিয়েছিল, পরে আবার ফিরিয়ে দিয়েছেন। তবুও এ ঘটনায় বন কর্মকর্তা আব্দুস সালাম বাদী হয়ে খালিশপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। এর বেশি আর কিছু বলতে পারবো না।  টেন্ডার মূল্যায়ন কমিটির সভাপতি খুলনার বন্যপ্রাণী সংরক্ষক মো. জাহিদুল কবীর বলেন, কাজটি ঢাকা থেকেই পরিচালিত হচ্ছে। আমি কাজটির পিডি নই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ