ঢাকা, সোমবার 24 January 2022, ১০ মাঘ ১৪২৮, ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
Online Edition

মাতৃগর্ভে গুলিবিদ্ধ নবজাতকের অবস্থা স্থিতিশীল

মাগুরায় ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ চলাকালে মাতৃগর্ভে গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর জন্ম নেওয়া কন্যাশিশুটির অবস্থা এখন স্থিতিশীল। আজ মঙ্গলবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক কানিজ হাসিনা শীর্ষ নিউজকে এ তথ্য জানিয়েছেন। শিশুটি ওই বিভাগে চিকিৎসাধীন। শীর্ষনিউজ ডট কম।

কানিজ হাসিনা বলেন, শিশুটির ওজন দুই কেজি। তার অবস্থা স্থিতিশীল। একটি গুলি তার পিঠ দিয়ে প্রবেশ করে বুক দিয়ে বেরিয়ে গেছে। তবে তার ভেতরের সব গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গপ্রত্যঙ্গ রক্ষা পেয়েছে। তার হাত, গলা ও চোখে আঘাত আছে। চোখের আঘাত নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে। প্রয়োজনীয় সব বিভাগের চিকিৎসকদের সঙ্গে পরামর্শ করে শিশুটির চিকিৎসা চলছে।

গত রোববার ভোরে নবজাতককে মাগুরা সদর হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গত বৃহস্পতিবার মাগুরা শহরের দোয়ারপাড় কারিগরপাড়ায় ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ চলাকালে আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ নাজমা খাতুন (৩৫) গুলিবিদ্ধ হন। ওই গুলি তাঁর পেটের সন্তানের শরীরও ভেদ করে। ওই দিন রাতে মাগুরা সদর হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের পর একটি কন্যাশিশুর জন্ম দেন নাজমা। অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত শনিবার রাতে নবজাতককে ঢাকায় পাঠানো হয়। প্রসূতি মা মাগুরা সদর হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

সংঘর্ষের ঘটনায় আহত মমিন ভূঁইয়া (৬৫) গত শুক্রবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের কর্মী জখম হয়েছেন।

এ ঘটনায় ছাত্রলীগের জেলা শাখার সহসভাপতি সেন সুমনকে (৩২) প্রধান আসামি করে ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। নিহত মমিনের ছেলে রুবেল ভূঁইয়া গত রোববার সদর থানায় মামলাটি করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ