ঢাকা, শনিবার 8 May 2021, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮, ২৫ রমযান ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

সরকারকে সংলাপের মাধ্যমে সংকট সমাধানের পরামর্শ সম্পাদকদের

দেশে চলমান রাজনৈতিক সংকট সমাধান করতে সরকারকে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতায় পৌঁছানোর পরামর্শ দিয়েছেন পত্রিকার সম্পাদকবৃন্দ।

রোববার সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সরকারের মন্ত্রীদের সঙ্গে পত্রিকার সম্পাদকদের এক মতবিনিময় সভায় তারা এ পরামর্শ দেন। সম্প্রতি ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মালিক-কর্মকর্তাদের সঙ্গে সরকারের বৈঠকের পর প্রিন্ট মিডিয়ার সঙ্গে এ ধরনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো।

পত্রিকার সম্পাদক ও প্রতিনিধিদের সঙ্গে দুই ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু সভাপতিত্ব করেন।

এর আগে সকাল সোয়া ১১টার দিকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই বৈঠক শুরু হয়। এতে দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়।

তথ্যমন্ত্রী ছাড়াও বৈঠকে নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, পানি সম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

সম্পাদকদের মধ্যে— সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, ডেইলি সান সম্পাদক আমির হোসেন, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম, ডেইলি স্টার সস্পাদক মাহফুজ আনাম, বাসসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, সকালের খবর সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন, যুগান্তরের নির্বাহী সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, আলোকিত বাংলাদেশ সম্পাদক কাজী রফিকুল আলমসহ বিভিন্ন সংবাদপত্রের সম্পাদক এবং সম্পাদকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন- তথ্যসচিব মরতুজা আহমদ, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরীও।

বৈঠক শেষে যুগান্তর সম্পাদক ও সম্পাদক পরিষদের সভাপতি গোলাম সারওয়ার সাংবাদিকদের বলেন, ‘দেশের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে অনেকক্ষণ খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। আমরা সবাই একমত হয়েছি- আমরা সবাই শান্তির স্বপক্ষে। সবাই শান্তি চাই, অশান্তি চাই না।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে দেশে যে অস্থিরতা চলেছে এর সমাধান হওয়া উচিত। এই যে বিশৃঙ্খলা চলছে, অশান্তি চলছে, সন্ত্রাস চলছে, সবাই এর বিরুদ্ধে। আমরা মনে করি এর রাজনৈতিক সমাধান হওয়া উচিত। আলোচনার মাধ্যমে সম্পাদকরা সমাধানের প্রস্তাব করেছি।’

তিনি আরও বলেন- ‘আমরা মনে করি দেশ এভাবে চলতে পারে না, সমাধান হতেই হবে। মানুষ কতকাল আর এমন অসহায়ভাবে থাকবে।’

বৈঠকের শুরুতে তথ্যসচিব বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, সরকার গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। সংবাদপত্র আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখে।

সচিব বলেন, সংবাদপত্র সমাজের দর্পণ হিসেবে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, নাশকতা, হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে বাতাস ভারাক্রান্ত- এসব পর্যবেক্ষণ নিয়ে খোলামেলা আলোচনা হতে পারে।

এরপর সরকারের সঙ্গে সংবাদপত্রের সম্পাদকদের ধারাবাহিকতায় এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে জানান তথ্যমন্ত্রী।

এর আগে গত ২২ জানুয়ারি টেলিভিশন চ্যানেলের সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠক করেন তথ্যমন্ত্রী, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুসহ সরকারের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী মন্ত্রী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ