মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

দু’দিন পরেও শেষ হয়নি বইমেলার সম্পূর্ণ প্রস্তুতি

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : দ্বিতীয় দিনেও শেষ হয়নি একুশে বইমেলার সম্পূর্ণ প্রস্তুতি। মেলার অভ্যন্তরে বিভিন্ন স্টলের কাজ এখনো অসমাপ্ত রয়েছে। স্টলগুলোতে পরিপূর্ণ বই আসেনি। এছাড়া বাংলা একাডেমি নির্ধারিত নিয়মনীতি থাকলেও তা শুধু কাগজে-কলমে সীমাবদ্ধ। সর্বত্রই শুধু অনিয়মের ছাপ লক্ষ্য করা গেছে।

এদিকে দর্শনার্থীদের ভিড়ে জমে উঠেছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। ছোট-বড় সবাই মেলায় অংশগ্রহণ করছে। তবে মেলায় উপস্থিতির সংখ্যা বাড়লেও স্টলগুলোতে বইয়ের সংখ্যা বাড়েনি। আসেনি মানসম্মত বই। মেলা শুরুর প্রথম দিকে এসে তাই অনেকেই পছন্দের বই না পেয়ে খালি হাতে ফিরে যাচ্ছে।

গতকাল রোববার বিকালে একুশে বইমেলা ঘুরে দেখা গেছে, বাংলা একাডেমির অভ্যন্তরের অংশের পশ্চিম দিকে প্রায় ৩০ থেকে ৪০টি স্টলের কাজ এখনো ধরাই হয়নি। শুধুমাত্র বাঁশের খুঁটি দিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছে। এছাড়া দেখা গেছে, অনেক স্টলের কাজ সম্পন্ন হলেও কোন বই উঠানো হয়নি।

অথচ বাংলা একাডেমি প্রেরিত অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৪ ‘নীতিমালা ও নিয়মাবলী’-এর ৯.১২ ধারায় লেখা আছে ‘যদি কোন বরাদ্দপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান উদ্বোধনের দিন পূর্ণাঙ্গভাবে স্টল চালু করতে না পারে তাহলে তার বরাদ্দ বাতিল হয়ে যাবে এবং গ্রন্থমেলায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না। এরূপ ক্ষেত্রে স্টল ভাড়া বাবদ প্রদেয় অর্থ বাজেয়াপ্ত বলে গণ্য হবে’।  অথচ মেলা শুরু হওয়ার দু’দিন পরও এসব স্টলগুলো চালু হয়নি।

নীতিমালার ২০ নম্বর ধারায় বইমেলার অভ্যন্তরে ধূমপান করা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ থাকলেও অহরহ এ ঘটনা ঘটছে। তাছাড়া বইমেলার রাস্তার আশপাশে কোন অবৈধ দোকান না থাকার কথা থাকলেও মেলা ঘুরে দেখা গেছে রাস্তার দু’পাশে অসংখ্য দোকান বসে গেছে। টিএসসি দিয়ে বইমেলা যেতে এসব দোকান দেখতে পাওয়া যায়। অনেক সময় মেলায় আগত দর্শনার্থীদের এসব দোকানের ফলে রাস্তায় চলাফেরা করতে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এসব দোকানগুলোর কয়েকটিতে উচ্চশব্দে সংগীত বাজাতেও দেখা গেছে।

এছাড়া গ্রন্থমেলার প্রতিটি স্টলে নিয়ম অনুযায়ী সর্বোচ্চ ৪টি এনার্জি সেভার বাল্ব ব্যবহার করার কথা থাকলেও অধিকাংশ দোকানগুলোতেই প্রায় ৮ থেকে ১০টি, কোন কোন দোকানে ১২/১৩টি বাল্ব জ্বালাতে দেখা গেছে। মেলার চারপাশে অসংখ্য পুলিশ ও আনসার বাহিনী নিযুক্ত থাকলেও তাদের বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

এদিকে মেলার দ্বিতীয় দিনে লোক সমাগম কিছুটা বাড়লেও স্টলগুলোতে মানসম্মত বই আসেনি বলে অভিযোগ করেছেন অনেক বই প্রেমী। ফলে পছন্দের বই না পেয়ে অনেকে খালি হাতে ফিরে যাচ্ছেন। আবার বই পছন্দ হলেও বইয়ে দাম আকাশ ছোঁয়া। অনেক ক্রেতাই বইয়ের এমন দাম দেখে হতাশ হয়েছেন। বাংলা একাডেমি নির্ধারিত দাম দেয়ার পরও বইয়ের দাম  অনেক বেশি বলে জানা গেছে। বড়দের পাশাপাশি অনেক ছোট বই প্রেমীদেরও মেলায় উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার বিকাল থেকে শুরু হয় অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৪। মেলায় মোট ২৯৯টি প্রতিষ্ঠানকে ৫৩৪টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের অংশেই রয়েছে মূলধারার প্রকাশনা সংস্থাগুলো। উদ্যানে ২৩২টি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৪৩২টি ইউনিট বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রতিদিন বেলা তিনটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত বইমেলা খোলা থাকবে। সরকারি ছুটির দিনগুলোতে বেলা ১১টা থেকে শুরু হবে মেলা। তবে একুশে ফেব্রুয়ারি মেলা শুরু হবে সকাল আটটা থেকে।

মেলায় আজকের অনুষ্ঠান : আজ সোমবার বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে মওলানা মোহাম্মদ আকরম খাঁ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন আবদুস সবুর খান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর, ফরীদ উদ্দীন মাসউদ, আমিনুর রহমান সুলতান, এএসএম বোরহান উদ্দীন। সভাপতিত্ব করবেন অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক। সন্ধ্যায় পরিবেশিত হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ