মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

মোদীকে কখনোই সমর্থন নয় : মমতা

নতুন বার্তা : “প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদীকে কোনোদিনই সমর্থন করব না আমি। সমর্থন করবে না তৃণমূল কংগ্রেসও।” শুক্রবার স্পষ্ট ভাষায় একথা জানালেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পঞ্চায়েত ভোটের প্রচারে গিয়ে বীরভূমের রামপুরহাটে আয়োজিত এক জনসভায় মমতা বলেন, “মোদীকে প্রধানমন্ত্রী পদে সমর্থন করার প্রশ্নই ওঠে না। কখনওই তাকে সমর্থন করব না। সমর্থন করার প্রশ্নই ওঠে না।”

এরপরই কংগ্রেস ও ইউপিএ-র দিকে বন্দুক তাক করেন মমতা। মমতা বলেন, “১০ বছর ধরে সরকার চালাচ্ছে ইউপিএ। এতদিন তারা কোনোদিন মোদীর নাম মুখেই আনেনি। এখন যেই দেখছে, ভোট এগিয়ে আসছে। তখন কংগ্রেস দেশবাসীকে ভয় দেখাচ্ছে, আমাদের যদি ভোট না দাও তাহলে মোদী প্রধানমন্ত্রী হয়ে যাবে। আর মোদী প্রধানমন্ত্রী হলেই সংখ্যালঘুদের দেশে টিকতে দেবে না।”

মমতা এদিন বিজেপিকেও একহাত নেন। তার মন্তব্য, “সংসদে প্রধান বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করতে ব্যর্থ হয়েছে বিজেপি। একটা দায়িত্বপূর্ণ বিরোধী দলের যা কাজ সেটাই করতে পারেনি বিজেপি ও এনডিএ। আর আমার তো মনে হয় বিজেপি আর কংগ্রেসের মধ্যে কোনও শত্রুতাই নেই। আর্থিক নীতির প্রশ্নে দুই দলের অবস্থানই এক। আর বিজেপি তো শুধু হিন্দু-মুসলিম বিভাজনের রাজনীতি করেই গেল। কিন্তু বিজেপি কোনোদিন হিন্দুদের স্বার্থ দেখেনি। মুসলিমদের তো নয়ই।”

এদিন মমতার সুরে কথা বলেছেন বিশিষ্ট সমাজকর্মী আন্না হাজারেও। আন্না সাফ জানিয়েছেন, “কোনোদিনই আমি বিজেপিকে ধর্মনিরপেক্ষ দল বলে সার্টিফিকেট দিইনি। বিজেপি একটা আগাগোড়া সাম্প্রদায়িক দল। আর মোদী কোনোদিনই ধর্মনিরপেক্ষ নন। তার দল শুধু ভারতে একটা সম্প্রদায়েরই স্বার্থ দেখে। অন্য সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে তারা কথা বলে। একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে বিষ ছড়ায় মোদীর দল। এটা ঠিক নয়। তাছাড়া জন লোকপাল বিল পাস করানো নিয়ে বিজেপি সংসদে কোনো উদ্যোগও নেয়নি। বিজেপি বিরোধী দলের ভূমিকাই পালন করেনি।”

এদিকে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও আন্না হাজারে যখন তোপ দাগছেন নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপির বিরুদ্ধে তখন বিজেপি আসন্ন যুদ্ধের জন্য তাদের টিম ম্যানেজমেন্টের নাম ঘোষণা করে দিল।  রাজধানীতে দলের সেন্ট্রাল কমিটির বৈঠকে নিজেদের টিম ম্যানেজমেন্ট ঘোষণা করল গেরুয়াবাহিনী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ