ঢাকা, সোমবার 27 September 2021, ১২ আশ্বিন ১৪২৮, ১৯ সফর ১৪৪৩ হিজরী
Online Edition

মেহেন্দীগঞ্জ ও হিজলায় নদী ভাঙন রোধ ও পুনর্বাসনের দাবি

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: বরিশাল জেলার মেহেন্দীগঞ্জ ও হিজলা উপজেলায় মেঘনাসহ অন্যান্য নদী ভাঙনরোধ ও পুনবার্সনের দাবি জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থরা।

শনিবার (১৯ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বরিশাল জেলার মেহেন্দীগঞ্জ ও হিজলা উপজেলায় মেঘনাসহ অন্যান্য নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত জনগণের উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন বক্তারা এসব দাবি জানিয়েছেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, মেহেদীগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ উলানিয়া, চাঁনপুর, রুকুন্দী সাদেকপুর, শ্রীপুর, চর গোপালপুর, জাঙ্গালিয়া, দরিরচর, খাজুরিয়া ও ভাসানচর ইউনিয়নসমূহ এবং হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া, হরিনাথপুর, ধূপখোলা, হিজলা গৌরবদী, ইউনিয়নসমূহ প্রধান নদী মেঘনা ও উপ নদী ছাড়াও তেতুলিয়া, গজারিয়া, কালাবদর ও লতা নদী ব্যাপক নদী-ভাঙনের শিকার। এসব এলাকার বসবাসকারীরা আজ রিক্ত নিঃস্ব ছিন্নমূল হয়ে পড়েছে।

এছাড়াও বিগত ৩টি ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসে স্থানীয় ঘর-বাড়ি, পশু-পাখি, ফসলহানীসহ রাস্তাঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ধর্মীয় উপসনালয় হাট-বাজার ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

বক্তারা শঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, আগামী ১/২টি বন্যায় হিজলা উপজেলা সদরের অবকাঠামোগুলোও নদী-ভাঙনের কবলে পড়তে পারে।

তবে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়, পানি উন্নয়ন বোর্ড, পরিবেশ-বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ উক্ত এলাকার প্রতি সচেতন দৃষ্টি রাখলে এবং যথাযথ ভূমিকা পালন করলে নদী ভাঙনরোধসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করলে আজ মানুষদের জান-মাল নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে হতো না। তাই অবিলম্বে নদী ভাঙ্গনরোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন এবং জরুরী ভিত্তিতে ক্ষতিগ্রস্থ জনগনের পুনর্বাসনে সর্বাত্মক উদ্যোগ গ্রহণ করা জরুরিও

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবীন শিক্ষক অধ্যাপক ড. শফিউর রহমান, সাবেক সচিব গোলাম মোস্তফা তালুকদার, পরিবেশবাদী সংগঠন বাপা'র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিহির বিশ্বাস, সিএলএনবি'র চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ