রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২
Online Edition

সিলেটে রায়হানের বাড়িতে পুলিশ সদর দফতরের তদন্ত দল

সিলেট ব্যুরো : সিলেট নগরীর বন্দরবাজার ফাঁড়িতে ‘পুলিশের নির্যাতনে’ নিহত রায়হান আহমদের (৩৪) বাড়ি পরিদর্শন করেছেন পুলিশ সদর দপ্তরের তদন্ত কমিটির সদস্যরা। অভিযুক্ত এসআই আকবর পালিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে কারো সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখবে তদন্ত কমিটি। এদিকে, গতকাল বুধবার দুপুরে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম শেষ হয়ে যাওয়ায় নতুন কর্মসূচি দিয়েছেন এলাকাবাসী। রায়হান হত্যার প্রতিবাদে এখনো উত্তাল সিলেট।
মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (এআইজি- ক্রাইম অ্যানালাইসিস বিভিাগ) মুহাম্মদ আয়ুবের নেতৃত্বে রায়হানের বাড়িতে যান পুলিশ সদর দপ্তর গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যরা। এসময় তারা রায়হানের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন। পরে তদন্ত কমিটির প্রধান এআইজি মুহাম্মদ আয়ুব সাংবাদিকদের বলেন, এসআই আকবরের পালিয়ে যাওয়ার সাথে আর কেউ সংশ্লিষ্ট আছেন কি-না সে বিষয়টি তদন্ত করার জন্যই আমাদের সিলেট আসা। এই তদন্তের অংশ হিসেবেই আমরা রায়হানের বাড়িতে এসে তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেছি। গত ১৩ অক্টোবর থেকে প্রধান অভিযুক্ত এস.আই আকবর হোসেন ভূইয়া পলাতক রয়েছেন। এ ঘটনায় কনস্টেবল টিটু দাসকে রিমান্ডে নিয়েছে পিবিআই। বাকী অভিযুক্তরা নজরবন্দিতে রয়েছেন।
এদিকে, সিলেট নগরীর বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে নিহত রায়হান হত্যায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারে পরিবার ও এলাকাবাসীর দেওয়া ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম বুধবার দুপুরে শেষ হয়েছে। এরইমধ্যে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটামের সময় শেষ হওয়ার আগেই নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন নেহারিপাড়ার বাসিন্দারা ও রায়হানের পরিবার। মঙ্গলবার রাতে এক বৈঠকে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। তিন দিনের কর্মসূচি:- আজ বৃহস্পতিবার পরিবার ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ, পরদিন শুক্রবার বাদ জুমা মসজিদে মসজিদে রায়হানের জন্য দোয়া মাহফিল ও শনিবার বিকেল ৪ টায় এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে মদিনা মার্কেট পয়েন্টে মানববন্ধন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন রায়হানের আত্মীয় মো. শওকত হোসেন। তিনি বলেন, ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটামের শেষের পর কঠোর কর্মসূচির কথা থাকলেও সাধারণ মানুষের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে কঠিন কর্মসূচি থেকে সরে আসা হয়েছে। তবে এরপরেও যদি প্রশাসন জড়িতদের গ্রেফতারে ব্যর্থ হয় তাহলে কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা আসবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ