রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২
Online Edition

চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত ২০,৩৫৫

চট্টগ্রাম ব্যুরো : গত চব্বিশ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ৯০৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৭৮ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ৭৩ জন নগরের ও ৫ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনা রোগী এখন ২০ হাজার ৩৫৫ জন। বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি এসব তথ্য জানান।
বিআইটিআইডি : সিভিল সার্জনের তথ্যানুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের প্রধান করোনা পরীক্ষাগার ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি)-তে বিদেশগামীদের বাধ্যতামূলক করানো টেস্টসহ দিনের সর্বাধিক ৪৯২ জনের নমুনা পরীক্ষা করানো হয়। তাতে করোনা শনাক্ত হয় ১৬ জনের শরীরে।
সিভাসু : চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়।
সিএমসিএইচ : চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় ১৪০ জনের নমুনা পরীক্ষা করোনা করা হয়। তাতে করোনা শনাক্ত হয় দিনের সর্বোচ্চ ২১ জনের শরীরে।
চবি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৮ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়।
শেভরণ : চট্টগ্রামের আরেকটি বেসরকারি করোনা পরীক্ষাগার শেভরণ ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় ৯৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৯ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়।
চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল : চট্টগ্রামে বেসরকারি পর্যায়ে নতুন যুক্ত হওয়া করোনার আরেকটি পরীক্ষাগার চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালে ১১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়।
কক্সবাজার মেডিকেল : কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ আসে।
আরটিআরএল : চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল রিজিওন্যাল টিউবারকুলোসিস র‌্যাফারেল ল্যাবরেটরিতেও (আরটিআরএল) ২৪ ঘণ্টায় ১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের পজিটিভ আসে।
উপজেলা পর্যায়ে নতুন শনাক্ত ৫ জনের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য সিভিল সার্জনের দেয়া রিপোর্টে ছিল না। বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার কোন নমুনা পরীক্ষা হয়নি।
চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ৭৮জন বেড়ে চট্টগ্রামে করোনা রোগীর সংখ্যা এখন ২০ হাজার ৩৫৫জন। এদের মধ্যে নগরের ১৪ হাজার ৮৩৫ জন এবং বিভিন্ন উপজেলার ৫ হাজার ৫২০ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন ৩০১ জন। যাদের ২০৮ জন নগরের এবং ৯৩ জন উপজেলার। ২০ অক্টোবর পর্যন্ত করোনা থেকে সুস্থতা লাভ করেছেন ১৫ হাজার ৮৩৬ জন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ