বুধবার ২০ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

ভোলায় মেডিকেলে কলেজের নির্মাণাধীন ভবনের ছাঁদ ধসে নিহত-১ ॥ আহত ১৩

ভোলা সংবাদদাতা : ভোলা বাংলাবাজার ফাতমো খানম মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নির্মানাধীন ছাদ ধসে ১ জন নিহত ও  আহত হয়ছে ১৩ জন। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে ছাঁদ ঢালাই দেয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহতের বাড়ি কুড়িগ্রাম। সে নির্মাণ শ্রমিক। এ ঘটনায় দৌলতখান থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।
স্থানীয় ও আহত সূত্রে জানযায়, ভোলার উপশহর বাংলা বাজারে সাবেক শিল্প ও বানিজ্য মন্ত্রী আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদ তার মায়ের নামে বহুতল বিশিষ্ট ফাতেমা খানম মেমোরিয়াল মেডিকেলা কলেজ হাসপাতল নির্মান করছেন। গতকাল ছিল ভবনের তৃতীয় তলার ছাঁদ ঢালাই। ছাঁদ ঢালাই দেয়ার সময় ভাইব্রেটর মেশিনে ছাঁদের ফিনিশিং কাজের সময় হঠাৎ বিকট শব্দে ছাদটি ধসে পরে। শব্দে চারিদিক থেকে লোকজন ও পরে ধমকল বাহিনী এসে আহতদের উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এতে খাইরুল ইসলাম (২৭) নামে এক নির্মান শ্রমিক নিহত হয়। নিহত খাইরুল ইসলামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার ভূইরাপুরের উলিপুর গ্রামে। আহত হয় ১৩ নির্মান শ্রমিক। এদের মধ্যে আশংকা জনক অবস্থায় একজনকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এখনও ১১জন ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। তারা হচ্ছে, জুয়েল, জব্বার, ছিদ্দিক, আসিক, মাইনুদ্দিন, শামীম, ফরিদ, শাকিল, সুমন, জয়নাল, হারুন, সফিকুল ও রফিকুল। এদের সকলের বাড়িই ভোলা জেলার বাহিরে। নিহত খাইরুলের ময়না তদন্ত শেষে লাশ তার নিজ বাড়িতে প্রেরণের ব্যাবস্থা করা হচ্ছে। নির্মান শ্রমিকরা আরো জানান, ভবনের তৃতীয় তলার এ ছাঁদটি প্লানে নেই। প্লান বহিঃর্ভূতভাবে করার কারনে এ র্দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। এনিয়ে ভবন নির্মানের সাথে সংশ্লিষ্ট কেউই কথা বলতে রাজি নয়। এ বিষেয়ে ভোলা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার মেহেদি হাসান ভূইয়া জানান, ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তিকৃতদের সকলেরই মাথা ও পিঠে আঘাত রয়েছে। তবে এ মূহুর্তে আশকামুক্ত বলা যাচ্ছেনা। র্দূর্ঘটনার বিষয়ে দৌলতখান থাান ভাারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলার রহমান জানান, এ বিষয়ে দৌলতখান থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। শ্রমিকদের অসাবধানতাবশত এ র্দূর্ঘটনা ঘটেছে। ভবনটি কততলা বিশিষ্ট র্মিান হচ্ছে বা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কে তা তিনি জানাতে পারেননি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ