ঢাকা, বৃহস্পতিবার 24 September 2020, ৯ আশ্বিন ১৪২৭, ৬ সফর ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

যুক্তরাজ্যে নতুন ভ্যাকসিনের পরীক্ষা শুরু

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাসের নতুন একটি ভ্যাকসিন যুক্তরাজ্যে স্বেচ্ছাসেবীদের দেহে আজ থেকে প্রয়োগ করা হচ্ছে । ইমপেরিয়াল কলেজ লন্ডন উদ্ভাবিত এই ভ্যাকসিন স্বেচ্ছাসেবীদের শরীরে প্রয়োগ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে সংবাদ মাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী কয়েক সপ্তাহে অন্তত ৩০০ জনের শরীরে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে। এর আগে পশুর শরীরে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হলে তা নিরাপদ ও শরীরে রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে যথেষ্ট কার্যকরী বলে প্রমাণিত হয়েছে। করোনাভাইরাসের এই ভ্যাকসিন তৈরিতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন ইমপেরিয়াল কলেজ লন্ডনের প্রফেসর রবিন শ্যাটক ও তার সহকর্মীরা।

বিশ্বজুড়ে প্রায় ১২০ টির বেশি ভ্যাকসিন তৈরির প্রকল্প চালু রয়েছে। এর মধ্যে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড ও ইম্পেরিয়াল কলেজের টিকা দুটি অগ্রগামী।

ফাইন্যান্স ক্ষেত্রে কাজ করা ক্যাথি (৩৯) প্রথম ইম্পেরিয়াল ভ্যাকসিন পরীক্ষায় স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। প্রথম ধাপের ৩০০ জনকে ভ্যাকিসন দেওয়ার পর অক্টোবর নাগাদ আরও ৬ হাজার মানুষের ওপর ভ্যাকসিন পরীক্ষার পরিকল্পনা করেছেন গবেষকেরা।

ইম্পেরিয়াল কলেজের গবেষক দল আশা করছেন, আগামী বছরের শুরুতে যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে তাঁরা ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে পারবেন।

চীনের বিজ্ঞানীদের তৈরি অন্তত ছয়টি সম্ভাব্য করোনা ভ্যাকসিন মানবদেহে পরীক্ষামূলক পর্যায়ে রয়েছে। শনিবার চাইনিজ একাডেমি অব মেডিকেল সায়েন্সেসের ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল বায়োলজি (আইএমবিসিএএমএস) তাদের তৈরি একটি ভ্যাকসিন দ্বিতীয় দফায় মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে। আইএমবিসিএএমএসের এই ভ্যাকসিনটি চীনের তৈরি ছয়টি ভ্যাকসিনের একটি।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান থেকে বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস। প্রথম দিকে ইউরোপ এবং আমেরিকায় ব্যাপক তাণ্ডব চালালেও বর্তমানে এশিয়া, উত্তর আমেরিকা এবং আফ্রিকা হয়ে উঠছে ভাইরাসটির উপকেন্দ্র। অতীতে সংক্রমণের দৈনিক সব রেকর্ড ভেঙে প্রত্যেক দিন নতুন রেকর্ড গড়ছে।

 

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ