ঢাকা, বুধবার 5 August 2020, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ জিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

৩১ মে থেকে সরকারি-বেসরকারি অফিস চালু, গণপরিবহন চলবে সীমিত পরিসরে

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশে সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না এবং সরকারি-বেসরকারি অফিস ও ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পাশাপাশি সীমিত পরিসরে গণপরিবহনও চলবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। তবে ১৫ই জুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। গণপরিবহন চলবে সীমিত পরিসরে চালুর খবরে হতাশ হয়েছেন যাদের ব্যক্তিগত গাড়ী নেই তারা। সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চালুর ফলে যাদের ব্যক্তিগত গাড়ী নেই তারা যানবাহনের সংকটের কারণে হয়রানি বাড়ার ও সামাজিক দূরত্ব বজায় না থাকার পাশাপাশি করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির আশংকা করছেন।

আগামী ৩১ মে থেকে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না উল্লেখ করে সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চলবে বলেও জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘স্বল্প যাত্রী নিয়ে, কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে বাস, লঞ্চ ও রেল চলাচল করবে।’

তবে সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চলার বিষয়টি বুধবার (২৭ মে) রাতে নিশ্চিত করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।এর আগে বিকেলে অবশ্য গণপরিবহন ১৫ জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

বুধবার বিকেলে ফরহাদ হোসেন বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষরিত প্রজ্ঞাপন কিছুক্ষণ আগে পেয়েছি। দেশে করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে গত ২৬ শে মার্চ থেকে বেশ কয়েকদফা সরকারি ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হলেও এবার ৩০শে মে’র পর আর ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হবে না।

তিনি আরো বলেন, ‘সাধারণ ছুটি আর বাড়ছে না। ১৫ জুন পর্যন্ত সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফতরিক কার্যক্রম চালিয়ে যাবে। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নিজস্ব নিয়মে সীমিত আকারে চালু থাকবে। বয়স্ক এবং গর্ভবতী মহিলারা অফিসে আসবেন না, গণপরিবহন চলবে না। আপাতত স্কুল, কলেজসহ অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ১৫ জুন পর্যন্ত। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজে যোগ দিতে হবে।’

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী সন্ধ্যার দিকে এই নির্দেশনাটি পাঠিয়েছেন। সাধারণ ছুটি আর না বাড়ানোর সিদ্ধান্তের পর পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।’

এর আগে সাধারণ ছুটি সংক্রান্ত সারাংশে প্রধানমন্ত্রী স্বাক্ষর করেন।

অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চালু রাখতে সীমিত পরিসরে সব অফিস খোলা রাখতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

তিনি আরও উল্লেখ করেন, নাগরিক জীবনের সুরক্ষার জন্য সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এক জেলা থেকে অন্য জেলায় প্রবেশের ক্ষেত্রে কড়াকড়ি আরোপ করতে হবে। জেলার প্রবেশমুখে চেকপোস্ট থাকবে।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ