বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

বেলকুচির বিশিষ্ট সমাজসেবক আলহাজ্ব শামসুল আলম মুন্সির ইন্তিকাল

বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা : বিশিষ্ট সমাজসেবক ও বেলকুচির ইসলামী আন্দোলনের বয়োজ্যেষ্ঠ মুরব্বী ও অভিভাবক আলহাজ্ব শামসুল আলম জোয়াদ্দার (শামসুল  মুন্সি) আর নেই। ইন্ন লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। গত শনিবার বেলা পৌনে ১২টায় বেলকুচি পৌরসভাস্থ শেরনগর মহল্লার নিজ বাসভবনে  তিনি হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তিকাল করেন। তাঁর মৃত্যুর খবর মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে নিজ এলাকাসহ গোটা বেলকুচি উপজেলায় শোকের  ছায়া নেমে আসে। বাদ এশা শেরনগর কবরস্থান ময়দানে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযার নামাযে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ,ওলামে-কেরামসহ হাজার হাজার মুসল্লি অংশ নেয় ও বিশিষ্ট নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। জানাযার নামাজ শেযে মরহুমকে তাঁর শেরনগর পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল  ৮১ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে, ৫ মেয়েসহ অসংখ্য নাতী-নাতনী, ভক্ত-অনুরাগী রেখে গেছেন। এদিকে মরহুমের ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ  জামায়াতে ইসলামী, কেন্দ্রীয় মজলিশে শু'রা সদস্য, সিরাজগঞ্জ জেলা জামায়াতের সিনিয়র নায়েবে আমীর আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মোঃ আলী আলম, জেলা কর্মপরিষদ সদস্য, বেলকুচি উপজেলা আমীর অধ্যাপক নূর-উন-নবী সরকার, সেক্রেটারী আরিফুল ইসলাম সোহেল, বেলকুচি পৌরসভা আমীর  হোসাইন  আলী ও পৌরসভা সেক্রেটারী গোলাম হোসেন প্রমূখ। নেতৃবৃন্দ শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। সেইসাথে, মরহুমের দ্বীন ইসলাম  প্রতিষ্ঠায় প্রচার ও প্রসারের ক্ষেত্রে তাঁর অবদান শ্রোদ্ধাভরে স্মরণ করেন। নেতৃবৃন্দ মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে তাঁর সকল নেক আমল কবুল করার মাধ্যমে জান্নাতুল ফেরদৌসের জন্য মহান আল্লাহর কাছে দো'য়া করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ