বৃহস্পতিবার ০১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

তরুণরা ঝুঁকছে ব্যবসায়ী শিক্ষায়

বাণিজ্য বিষয়ক বিশেষায়িত শিক্ষার প্রশ্নে যে নামটি সবার আগে উচ্চারিত হয়, তা হলো ঢাকা কমার্স কলেজ। এই সাফল্যের স্বীকৃতি এসেছে এর শিক্ষার্থীদের সেরা ফলাফলের কারণে। খোদ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরা কলেজের তালিকায় বারবার উঠে এসেছে ঢাকা কমার্স কলেজ। এসব অর্জনের পিছনে রয়েছে কলেজটির গভর্নিং বডির সুদক্ষ পরিচালনা, অধ্যক্ষের সুদক্ষ নেতৃত্ব ও একঝাঁক দক্ষতাসম্পন্ন অভিজ্ঞ শিক্ষকের সুদক্ষ পাঠদান এবং নিয়মশৃঙ্খলায় সদা অবিচল প্রশাসনিক অবকাঠামোর কারণে। ১৯৮৯ সালে গঠিত ঢাকা কমার্স কলেজ ১৯৯৬ ও ২০০২ সালে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি অর্জন করেছিল। আবার গত ২ মার্চ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনির হাত থেকে সেরা কলেজের পুরস্কার ও সম্মাননা সনদ গ্রহণ করেন ঢাকা কমার্স কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর মো. শফিকুল ইসলাম। উল্লেখ্য, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ র্যাঙ্কিং ২০১৫ ও ২০১৬-তেও ঢাকা কমার্স কলেজ দেশের সেরা বেসরকারি কলেজ নির্বাচিত হয়েছিল। উচ্চ মাধ্যমিকে ৯৯ ও স্নাতক কোর্সে মাত্র ৯৮ জন শিক্ষার্থী নিয়ে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু করা এই কলেজের বর্তমান ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ৭ হাজারেরও বেশি। বোর্ড ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধা তালিকায় এই কলেজের ছাত্রছাত্রী ১ম, ২য়, ৩য় স্থানসহ বিভিন্ন বছরে ১৩টি মেধাস্থান লাভ করেছে। গ্রেডিং পদ্ধতি চালু হওয়ার পর এই কলেজের পাসের হার ৯৯.৭১%। কলেজটির পরিচালনা পর্ষদের সভাপতির দায়িত্বে আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ড. সফিক আহমেদ সিদ্দিক। তাঁর যোগ্য নেতৃত্ব, দিকনির্দেশনা ও পরামর্শে অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর মো. শফিকুল ইসলাম শিক্ষকদের সমন্বয়ে কলেজেটিকে উত্তরোত্তর সাফল্যের সঙ্গে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।
মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে হাতে গোনা যে দু-একটি প্রতিষ্ঠান আছে, এই তালিকায় অগ্রগণ্য আরেকটি নাম গুলশান কমার্স কলেজ। কলেজটি উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে এবং স্নাতক ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় পাঠদান করে আসছে। শুধু তাই নয়, ২০১৯ সাল থেকে নিজস্ব ভবনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বিবিএস স্নাতক পর্যায়ে পাঠদান কার্যক্রমের স্বীকৃতি অর্জন করে এই কলেজ। অনার্স কলেজসমূহের ব্যবসায় অনুষদের ছাত্রছাত্রীদের কাছে জনপ্রিয় লেখক, কমার্স পাবলিকেশন্সের প্রতিষ্ঠাতা এম এ কালামের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ব্যবসায় শিক্ষা প্রসারের উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালে, গ-৯৭ ও গ-১০৯, প্রগতি সরণি, মধ্য বাড্ডা, ঢাকা থেকে যাত্রা শুরু হয় এই কলেজের। ইতিমধ্যে এদের ৯টি ব্যাচ অত্যন্ত সাফল্যের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করছে। সদ্য সমাপ্ত উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে কলেজটির দশম ব্যাচ।
২০০৭ ও ২০০৮ সালে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে এদের প্রথম ব্যাচ। ওই ব্যাচে শতভাগ পাসের কৃতিত্ব অর্জন করে কলেজটি। এছাড়া ২০০৮ সালে ঢাকা শিক্ষাবোর্ডে ষষ্ঠ স্থান অধিকার করে রীতিমতো চমক সৃষ্টি করেছিল এই কলেজ। এদের গড় পাসের হার ৯৮% থেকে ৯৯%। বিশেষ করে প্রত্যেকেরই জিপিএর হার ভর্তিকৃত সময়ের তুলনায় আরো কয়েকগুণ বৃদ্ধি পায়। সম্প্রতি এই কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ এম এ কালাম ঢাকা মহানগরীর শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা, ঢাকা অঞ্চল পরিচালিত প্রতিযোগিতায় এই কৃতিত্ব অর্জনে সক্ষম হন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ