শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

আজকের হরতালের সমর্থনে সিলেটে পথসভা ও প্রচারপত্র বিলি

সিলেট ব্যুরোঃ গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বাম জোটের আহবানে আজ রোববার সকাল ৬ টা থেকে বেলা ২ টা পর্যন্ত হরতালের সমর্থনে নগরীর বিভিন্ন স্থানে পথসভা, প্রচার বিলি ও পোষ্টারিং করছে সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলা শাখার উদ্যোগে আজকের হরতালের সমর্থনে গতকাল শনিবার বিকাল ৫ টায় কদমতলী পয়েন্টে এক পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।
পথসভায় সিপিবি সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আনোয়ার হোসেন সুমনের  সভাপতিত্বে এবং ছাত্রনেতা সঞ্জয় দাসের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন বাসদ (মার্কসবাদী)  জেলা আহবায়ক উজ্জ্বল রায়, সিপিবি জেলার যুগ্ম সম্পাদক খায়রুল হাছান, যুব ইউনিয়ন জেলা সাধারন সম্পাদক নিরঞ্জন দাস খোকন প্রমুখ।
পথসভায় বক্তারা বলেন, ভারতসহ সারাবিশ্বে যখন গ্যাসের মূল্য কমছে সেখানে আমাদের দেশে অযৌক্তিক গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি করা হচ্ছে লুটেরা ব্যবসায়ীদের স্বার্থে। আমাদের দেশে গ্যাসের দাম যখন ৩২.৮ শতাংশ  বাড়ানো হলো তখন ভারত প্রতি ঘনমিটারে ১০১ রুপি দাম কমালো। তাহলে এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত মূলত ব্যবসায়ীদের পকেট ভারি করতে জনগণের পকেট কাটার ব্যবস্থার আয়োজন।
বক্তারা অগণতান্ত্রিক ভাবে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারে সরকারকে বাধ্য করতে আজ রোববার  সকাল ৬-২ টা হরতাল সফল করার জন্য সিলেটবাসীর প্রতি আহবান জানান।
হরতাল সফলে পোস্টারিং
গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ও বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবিতে গণতান্ত্রিক বাম জোটের ডাকা আজ  রোববার আধাবেলা (৬-২টা) হরতালের সমর্থনে সিলেটে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতাকর্মীরা।
হরতাল সফলের আহ্বান জানিয়ে গতকাল শনিবার জোটের নেতাকর্মীরা সিলেট নগরীর ক্বীনব্রিজ, সুরমা মার্কেট, কোর্ট পয়েন্ট, সিটি পয়েন্ট ও বন্দরবাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় পোস্টারিং করেন।
এছাড়াও হরতাল সফলে গত কয়েকদিন ধরে জোটের নেতারা নগরীতে গণসংযোগ ও মাইকিংসহ বিভিন্নভাবে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।
গ্যাস বিদ্যুৎ গ্রাহক কল্যাণ পরিষদের প্রচারপত্র বিলি
এদিকে গ্যাস খাতে দুর্নীতির মাধ্যমে লুন্ঠিত হাজার হাজার কোটি টাকা উদ্ধার করে বর্ধিত গ্যাসের মূল্য প্রত্যাহার ও গ্যাস বিদ্যুৎ খাতে ভর্তুকি প্রদানের দাবীতে গ্যাস বিদ্যুৎ গ্রাহক কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে ও আজকের হরতালের সমর্থনে গতকাল শনিবার সকাল ১১ ঘটিকার সময় সুরমা মার্কেট পয়েন্টে এক গণসংযোগ ও প্রচার পত্র বিলি শুরু হয়। পরে গণসংযোগ কর্মসূচি বিক্ষোভ মিছিলে পরিণত হয়। এ সময় নেতৃবৃন্দ হরতালের সমর্থনে সাধারণ জনগণের মধ্যে প্রচার পত্র বিলি করেন। বিক্ষোভ মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে আম্বরখানা পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়। কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব মকসুদ হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তারা গ্যাসের মূল্য বাতিলের চ্যালেন্স করে মহামান্য হাইকোর্টে ক্যাবের রীট গ্রহণের পদক্ষেপের প্রতি অভিনন্দন জ্ঞাপন করে বলেন, জনস্বার্থ, গণমত উপেক্ষা করে গ্যাসের এই মূল্য বৃদ্ধির ঘোষণায় দেশের গরীব-দুঃখী মানুষের মধ্যে এক চরম আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি ফলে সাধারণ জনগণের মধ্যে গভীর হতাশা বিরাজ করছে। মধ্যবিত্ত ও নি¤œ মধ্যবিত্ত পরিবারের মধ্যে বিশৃংখলা ও অশান্তি নেমে এসেছে।
সভাপতির বক্তব্যে মকসুদ হোসেন বলেন, গ্যাসের বর্ধিত মূল্য বাতিলের জন্য প্রধানমন্ত্রীর জরুরী হস্তক্ষেপ দেশবাসী দেখতে চায়। তিনি বর্ধিত গ্যাসের মূল্য বাতিলের দাবীতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতাল সফল করে তোলার জন্য দেশবাসীর প্রতি আকুল আহবান জানান।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন-গ্যাস বিদ্যুৎ গ্রাহক কল্যাণ পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুল মন্নান পুতুল, হাইকোর্টের অন্যতম সংগ্রামী আইনজীবী চৌধুরী আতাউর রহমান আজাদ, ব্যারিষ্টার মোজাক্কির হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা আমীরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া, সিনিয়র সাংবাদিক দেলওয়ার হোসেন জিলন,  পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য ও মানবাধিকার কর্মী  সৈয়দ আকরাম আল সাহান, আব্দুল মোতাওয়াল্লী ফলিক, শেখ কবির আহমদ, কয়েছ আহমদ সাগর, রফিকুল ইসলাম শিতাব, দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ যুব ফোরামের সভাপতি ইসমত ইবনে ইসহাক সানজিদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাবেদুল ইসলাম দিদার, জাতীয় জনতা পার্টির জেলা সেক্রেটারি আখলিছুর আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ