শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন গণ-আন্দোলনে রূপ নেবে -সেলিমা রহমান

গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এগ্রিকালচার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ আয়োজিত বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কৃষিবিদদের প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দেশের জনগণের ওপর দানবীয় কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে অভিযোগ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান বলেছেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবির আন্দোলনে জনগণের সম্পৃক্ততা বাড়ছে, জনগণের উত্তাপ অবশ্যই বাড়ছে। আমরা জানি এই উত্তাপ গণআন্দোলনে রূপ নেবে। যে কোনো আন্দোলন যতক্ষণ গণআন্দোলনে রূপ না নেয় সে আন্দোলন ফলপ্রসূ হয় না।
গতকাল শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এগ্রিকালচারিস্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-এ্যাব আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
দলীয় চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করে সেলিমা বলেন, “বাংলাদেশের জনগণের মুক্তি বলেন, গণতন্ত্রের মুক্তি বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা রক্ষাকারী বলেন, সব কিছুর জন্য বাংলাদেশের একজন আছেন, তিনি হচ্ছেন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া। “আজকে প্রতিটি ঘরে ঘরে একটি আওয়াজই ধ্বনিত হচ্ছে, একটি আওয়াজই বার বার উচ্চারিত হচ্ছে- আমাদের দেশনেত্রী গণতন্ত্রের মাতা কবে মুক্তি পাবেন?
তিনি বরেন, ‘আমি দৃঢ়তার সাথে বলতে চাই, তাকে আমরা মুক্ত করবোই। যেভাবে হোক আমরা সকলে মিলে একসাথে দেশনেত্রীকে মুক্ত করব। এই শপথ নিতে হবে।’ আপনারা দেখেছেন ’৬৯ এর আন্দোলন, আপনারা দেখেছেন আমাদের ’৯০ এর আন্দোলন।’
সেলিমা রহমান বলেন, ‘আওয়ামী লীগের লক্ষ্য বাংলাদেশে একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করা। খালেদা জিয়া বাহিরে থাকলে তারা তাদের একদলীয় শাসন চালিয়ে যেতে পারবে না বুঝতে পেরেই দেশনেত্রীকে কারাগারে বন্দি করে রেখেছে।’
তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের ওপর একটা অবৈধ সরকার চড়ে বসেছে। যারা দানবের মতো কর্মকা- চালাচ্ছে জনগণের ওপর। তাদের একটিই লক্ষ্য- বাংলাদেশে একদলীয় শাসন কায়েম করা। যে কারণে গণতন্ত্রের মাতা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রেখেছে। কারণ বেগম জিয়া রাজনীতির মাঠে থাকলে তাদের আর অবৈধ শাসন চালানো সম্ভব হবে না। যে কারণে প্রতিহিংসার বশবর্তী খালেদা জিয়াকে কারারুদ্ধ করে রেখেছে সরকার।’
তিনি বলেন, ‘জিয়া পরিবারের ওপর আজকে যে অত্যাচার-নির্যাতন তার সব কিছুই একটা বিষয়কে কেন্দ্র করে। সেটা হলো এদেশের জনগণের ওপরে তা-ব চালিয়ে অবৈধ শাসন কায়েম করা।’
বিএনপির স্থায়ী কমিটির নবাগত এই সদস্য বলেন, ‘আজকে জনগণের সম্পৃক্ততা বাড়ছে, জনগণের উত্তাপ অবশ্যই বাড়ছে। আমরা জানি এই উত্তাপ গণআন্দোলনে রূপ নেবে। যে কোনও আন্দোলন যতক্ষণ গণআন্দোলনে রূপ না নেয় সে আন্দোলন ফলপ্রসূ হয় না।’
সংগঠনের আহবায়ক রাশিদুল হাসান হারুনের সভাপতিত্বে  ও সদস্য সচিব জি কে মোস্তাফিজুর রহমানের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, ফরহাদ হালিম ডোনার, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, শামীমুর রহমান শামীম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক ইব্রাহীম খলিল, এএবি’র অধ্যাপক গোলাম হাফিজ কেনেডি, অধ্যাপক বাদল সরকার, রজব আলী, শফিকুল ইসলাম, হাসান জাফির তুহিন, আতিকুল ইসলাম, সাহাদত হোসেন চঞ্চল প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ