রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

করের বোঝা চাপিয়ে জনজীবন দুর্বিষহ করে তুলছে সরকার

খুলনা অফিস : বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা মহানগর সভাপতি সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেছেন, লুটেরা দুর্বৃত্তদের পকেট ভারি করতেই গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে সরকার। সোয়া পাঁচ লক্ষ কোটি টাকার বাজেটের ঘাটতি মেটাতে সরকারকে এরপর বিদ্যুতের দাম বাড়াতে হবে। পানির দাম বাড়াতে হবে। নিত্যপ্রয়োজনীয় সকল পণ্যের দাম বেড়ে সামাজিক অস্থিরতা ও বৈষম্য তৈরি হবে। তিনি অভিযোগ করেন, রাতের অন্ধকারে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে রাষ্ট্র ক্ষমতা দখলকারী সরকারকে ভোটের জন্য জনগনের কাছে যেতে হয়না। এ জন্য তাদের কাজে কোন স্বচ্ছতা নেই, জবাবদিহিতা নেই।
১০ বছর আওয়ামী স্বৈরশাসনের যাতাকলে দেশের মানুষ পিষ্ঠ হচ্ছে অভিযোগ করে বিএনপি নেতা মঞ্জু বলেন, তাদের লুটপাট ও দুঃশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে উঠতে না পারে সেজন্য গণতন্ত্রের সংগ্রামের আপোসহীন নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা বানোয়াট মামলায় কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। জামিন লাভের পরেও নানা টালবাহানায় তাকে মুক্তি দেওয়া হচ্ছেনা। লক্ষ লক্ষ নেতাকর্মী মামলার ঘানি টানছে। গুম-খুন-নির্যাতনের শিকার হয়েছেন অসংখ্য বিরোধী রাজনৈতিক মতাদর্শের কর্মী। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও জনগনের সরকার প্রতিষ্ঠা ছাড়া এ দুঃশাসন থেকে মুক্তি মিলবেনা দাবি করে তিনি চূড়ান্ত সংগ্রামের জন্য প্রস্ততি নিতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।
গ্যাসের অযৌক্তিক মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী খুলনায় বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১ টায় নগরীর কে ডি ঘোষ রোডে দলীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে এ কর্মসূচি পালিত হয়। বিএনপি খুলনা মহানগর ও জেলা শাখা যৌথ ভাবে এ কর্মসূচির আয়োজন করে। নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ড ও জেলার একাধিক থানা থেকে নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সমাবেশে যোগ দেন। সমাবেশ চলাকালে দফায় দফায় মুষলধারে বৃষ্টি নামলে উপস্থিত নেতাকর্মীরা বৃষ্টিতে ভিজে শ্লোগানে শ্লোগানে সমগ্র এলাকা মুখরিত করে রাখে।
কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন সাবেক সিটি মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, আমীর এজাজ খান, শেখ মোশারফ হোসেন, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, জলিল খান কালাম, শাহজালাল বাবলু, স ম আব্দুর রহমান, শেখ ইকবাল হোসেন, মনিরুজ্জামান মন্টু, শেখ আব্দুর রশিদ, মোল্লা খায়রুল ইসলাম, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, মাহববু কায়সার, কামরুজ্জামান টুকু, মোল্লা মোশারফ হোসেন মফিজ, মহিবুজ্জামান কচি, মেহেদী হাসান দীপু, শফিকুল আলম তুহিন, শাহিনুল ইসলাম পাখী, মুজিবর রহমান, ইকবাল হোসেন খোকন, এহতেশামুল হক শাওন, জালু মিয়া, সাদিকুর রহমান সবুজ, খায়রুল ইসলাম খান জনি, ইউসুফ হারুন মজনু, সেলিম সরদার, খন্দকার ফারুক হোসেন, সরোয়ার হোসেন, সাজ্জাদ আহসান পরাগ, বিপ্লবুর রহমান কুদ্দুস, মুর্শিদ কামাল, মাসুদ পারভেজ বাবু, রফিকুল ইসলাম বাবু, সাইফুল ইসলাম সান্টু, নিয়াজ আহমেদ তুহিন, গাজী আব্দুল হালিম, জাকির হোসেন, নাজিরউদ্দিন আহমেদ নান্নু, আবুল কালাম জিয়া, শেখ ইমাম হোসেন, হাফিজুর রহমান মনি, শেখ জামিরুল ইসলাম, হাসানউল্লাহ বুলবুল, রাহাত হোসেন লাচ্চু, আফসারউদ্দিন মাস্টার, হাবিব বিশ্বাস, তরিকুল ইসলাম, আবু সাঈদ শেখ, আব্দুল লতিফ, হাসনা হেনা, রবিউল ইসলাম, মোল্লা ফরিদ আহমেদ, তৌহিদুল ইসলাম খোকন, ইমতিয়াজ আলম বাবু, মোস্তফা কামাল, জাবির আলী, লিটন খান, কাজী শাহনেওয়াজ নীরু, মোহাম্মদ আলী, আনসার আলী, ওয়াহিদুর রহমান দীপু, আসলাম হোসেন, বাচ্চু মীর, আব্দুর রহমান ডিনো, মাহমুদ আলম বাবু মোড়ল, শাহাবুদ্দিন মন্টু, ম শা আলম, জি এম রফিকুল হাসান, জাহিদুর রহমান রিপন, জাহাঙ্গীর হোসেন, নূরে আব্দুল্লাহ, লিটু পাটোয়ারী, ময়েজউদ্দিন চুন্নু, কাজী নজরুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম, রোকেয়া ফারুক, মাজেদা খাতুন, আনজিরা বেগম, করসারী জাহান মঞ্জু, মুন্নি জামান, কাল্লু কোরায়শী প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ