শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

পাকিস্তানের ‘নসর’ ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ

৩০ জানুয়ারি, সাউথ এশিয়ান মনিটর : পশ্চিমের গ্রতিবেশি দেশটিতে দ্রুত, গ্রচলিত ধরনের হামলার জন্য ‘ইন্টিগ্রেটেড ব্যাটল গ্রুপের’ (আইবিজি) আইডিয়া গ্রণয়ন করতে আগ্রহী ভারতীয় সেনাগ্রধানকে হতাশ করেছে পাকিস্তানের সফলভাবে স্বল্প পাল্লার পরমাণু-সক্ষম নসর ক্ষেপণাস্ত্রের ‘গ্রশিক্ষণ উৎক্ষেপণ’।

নসর উৎক্ষেপণ ভারতীয় কমান্ডারদের আত্মবিশ্বাসে ফাটল ধরিয়ে দিয়েছে। আইবিজি হলো ভারতীয় সেনাবাহিনীর কোল্ড স্টার্ট ডকট্রিনের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত একটি পরিকল্পনা। অপারেশন কারাকরাম (২০০১-২০০২)-এর ব্যর্থতার প্রেক্ষাপটে এই পরিকল্পনা গ্রণয়ন করা হয়েছিল।

ভূমি থেকে ভূমিতে নিক্ষেপযোগ্য নসরের পাল্লা ৬০ কিলোমিটার। ভারতীয় সেনাগ্রধানের আইবিজি আইডিয়াটি নিয়ে নতুন করে ভাবার প্রেক্ষাপটে এই ক্ষেপণাস্ত্রের উৎক্ষেপণ বিস্ময়ের কোনো বিষয় নয়। জেনারেল বিপিন এখন ওই আইডিয়া সামনে নিয়ে আসছেন। তিনি বলছেন, আইবিজি ওয়ার-গেম এবং গত মে মাসে এটিকে বাস্তবে পরীক্ষা করা হয়েছিল।

ভারতের একটি সংবাদপত্র দাবি করেছে, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, তারা উভয়ে চায়, তাদের গ্রিয় যুদ্ধকৌশলে নিয়োজিত হতে। ভারত গ্রচলিত যুদ্ধে শ্রেষ্ঠ। তাই তারা পাকিস্তানের সাথে গ্রচলিত যুদ্ধে লড়াই করতে চায়।

আর পাকিস্তান চায় অগ্রচলিত যুদ্ধে লড়াই করতে। এখানে তারা পরমাণু অস্ত্রও ব্যবহার করতে পারবে। এর মাধ্যমে তারা ভারতের যুদ্ধ কৌশল পুরোপুরি এড়িয়ে যেতে পারবে। ভারতীয় সেনাবাহিনীর গ্রণীত কোল্ড স্টার্ট ডকট্রিনটি আসলে সীমিত পরিসরের গ্রচলিত যুদ্ধ। এই ডকট্রিন অনুযায়ী, গ্রচলিত যুদ্ধে পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্র পূর্ণ মাত্রায় ব্যবহার করার সুযোগ থাকবে না।

ভারত সরকার এই ডকট্রিনের অস্তিত্বের কথা কখনো স্বীকার করেনি। তবে তারা এখন বুঝতে পারছে, নসরের মতো স্বল্প পাল্লার পরমাণু অস্ত্রগুলো ভারতীয় ফরমেশনে আঘাত করে ওই পরিকল্পনা কার্যকরে বাধার সৃষ্টি করবে। ২৬/১১-এর গ্রতি ভারতের নিরবতা গ্রমাণ করে কোল্ড স্টার্ট হয় কার্যকর করার মতো নয় কিংবা ভারতীয় বাহিনী সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে এ ধরনের হামলা চালানোর মতো আত্মবিশ্বাসী নয়।

 জেনারেল রাওয়াত এখন নতুন একটি আইডিয়া সামনে এনেছেন। তিনি বলছেন, আইবিজি খুবই কার্যকর হবে। এতে কোল্ড স্টার্ট ডকট্রিনকে বিশ্বাসযোগ্য মাত্রায় উপনীত করা হয়েছে। এই প্রেক্ষাপটেই  পাকিস্তান নসর নিয়ে এসেছে। এটি শত্রুর মনে আতঙ্কের সৃষ্টি করবে। যত দিন ভারতীয় নেতারা এই ক্ষেপণাস্ত্রকে ভয় পাবে, তত দিন এর কার্যকারিতা থাকবে। এদিকে ভারতীয় সেনাগ্রধান ইঙ্গিত দিয়েছেন, ভারতীয় সেনাবাহিনীর ব্রিগেডিয়ার পদটি বিলুপ্ত করা হবে। এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন, ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কর্নেলদের সরাসরি মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতি দেয়া হতে পারে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ