মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

যুবদলের সভাপতি সিজারকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত

চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতা, ১৭ ডিসেম্বর: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদল চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি শরিফ উর জামান সিজারকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করা হয়েছে। শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাইক্রোবাসে চেপে এসে একদল যুবক ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ী কুপিয়ে সিজারকে জখম করে চলে যায়। ঘটনার সময় সিজার তার শহরের বাগানপাড়ার বাড়ীর পাশে একটি চায়ের দোকানে বসে ছিল। গুরত্বর জখম যুবদল সভাপতি সিজারের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা বলতে পারেনি পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাত সাড়ে ৮টার দিকে যুবদল সভাপতি শরিফ উজ জামান সিজার তার বাড়ি পাশে একটি চায়ের দোকানে বসে ছিল। এ সময় একটি সাদা মাইক্রবাসে ৮ জন ব্যক্তি এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে সিজারকে এলোপাতাড়ী কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। পরে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়।
তাকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার করেন চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের সিনিয়র সার্জারি কনসালটেন্ট ডা.ওয়ালিউর রহমান। তিনি বলেন, সিজারের হাতে একটি কোপ হাড়ে ¯পর্শ করে গভীর হয়েছে। সেখানে রড স্থাপন করতে হবে। তাছাড়া তার পিঠে ২টি এবং বুকে ১টি গভীর ক্ষত হয়েছে।
গতকাল বিকাল সাড়ে ৪ টায় এ লেখা পর্যন্ত পঙ্গু হাসাতালে তার অপারেশন চলছিল বলে স্বজনরা জানান।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ দোলোয়ার হোসেন খাঁন বলেন, ঘটনার বিষয়টি তদন্ত না করে বলা যাচ্ছেনা।
চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী শরীফুজ্জামান শরীফ বলেন, আমরা এ ব্যাপারে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিস্তারিত জানাবো। তবে নির্বাচনী প্রচারের শুর”র থেকেই আমাদের বিভিন্নভাবে হুমকি,নির্বাচনী ক্যাম্প গুড়িয়ে দেয়া ও পোস্টার ছেঁড়া চলছিল। এরই ধারাবাহিকতায় যুবদল সভাপতিকে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করা হলো।
ঘটনার খবর পেয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খোন্দকার ফরহাদ আহমদ,এনএসআই এর সহকারী পরিচালক তপু কুমার ভৌমিক, অতিরীক্ত পুলিশ সুপার কলিমুল্লাহসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ হাসপাতালে দেখতে যান। এ ঘটনায় কোন মামলা কিংবা আটক হয়নি বলে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ