বুধবার ২০ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

দিনাজপুরের ৩টি আসনে জামায়াত প্রার্থীর ফরম উত্তোলনে নেতা-কর্মীরা উজ্জীবিত 

 

দিনাজপুর অফিস : দিনাজপুরের ৩টি আসনে ৩ জামায়াত নেতার মনোনয়ন ফরম উত্তোলনে তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা উজ্জীবিত হয়েছে। এবার নিরব ব্যালট বিপ্লবের মাধ্যমে দুর্নীতি ও দুঃশাসনের জবাব দিতে তারা প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। আগামী নির্বাচনে ৩টি আসনেই জামায়াত প্রার্থীরা বিজয়ী হবে বলে তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা মনে করছেন। দিনাজপুরের মোট ৬টি আসনের মধ্যে জামায়াত প্রার্থীরা মনোনয়ন ফরম উত্তোলন করেছেন দিনাজপুর-১, ৪ ও ৬ আসনে। এর মধ্যে দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ-কাহারোল) আসনে বীরগঞ্জ পৌর মেয়র মাওলানা হানিফ, দিনাজপুর-৪ (চিরিরবন্দর-খানসামা) আসনে চিরিরবন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আফতাবউদ্দীন মোল্লা ও দিনাজপুর-৬ (বিরামপুর-হাকিমপুর-নবাবগঞ্জ-ঘোড়াঘাট) আসনে দিনাজপুর জেলা (দক্ষিণ) জামায়াতের আমীর মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম।

গত বুধবার বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়ামিন হোসেনের নিকট থেকে দিনাজপুর-১ আসনের মনোনয়ন উত্তোলন করেন বীরগঞ্জ পৌর মেয়র মাওলানা মোঃ হানিফ। এ সময় তাঁর সাথে ছিলেন উপজেলা জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি রাশেদুন্নবী বাবু, শিক্ষাবিদ প্রফেসর মাহমুদুন্নবী লিটন, পৌর কাউন্সিলর আহমদ সেক্রেটারি, ফারুক হোসেন, মেহেদী হাসান ও ফুলেজা বেগম। একইভাবে দিনাজপুর-৪ আসনে চিরিরবন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জামায়াতে ইসলামীর রংপুর অঞ্চলের অন্যতম টীম সদস্য আলহাজ্ব আফতাব উদ্দীন মোল্লার পক্ষে মনোনয়ন সংগ্রহ করা হয়। দিনাজপুর-৬ আসনে জামায়াত নেতা মোঃ আনোয়ারুল ইসলামের পক্ষে বিরামপুর উপজেলা নির্বাচনী অফিস হতে মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেন নবাবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ নূরে আলম সিদ্দীকি, বিরামপুর বণিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা আশরাফুল ইসলাম ও বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ মোঃ আতিয়ার রহমান এমবিবিএস প্রমুখ। জামায়াত নেতাদের এ মনোনয়ন ফরম উত্তোলনের মধ্য দিয়ে উজ্জীবিত নেতা-কর্মীরা নতুনভাবে কাজ করতে শুরু করেছেন। তারা ভোটারদের কাছে তাদের প্রার্থীর সালাম পৌঁছাতে শুরু করেছেন। এ ব্যাপারে বীরগঞ্জ উপজেলার মোঃ মোশাররফ হোসেন জানান, এবার আমাদের প্রার্থী ২ বারের নির্বাচিত সফল পৌর মেয়র মাওলানা হানিফ। ২০০৮ সালের নির্বাচনে তাকে জনগণ ভোট দিলেও ইলেকশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মাধ্যমে হারিয়ে দেয়া হয়। এবার তাকে বিজয়ী করাই আমাদের মিশন। একইভাবে খানসামা উপজেলার মুক্তার হোসেন শাহ্ বলেন, চিরিরবন্দর উপজেলার পর পর ২ বার নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা আফতাব উদ্দীন মোল্লা আমাদের প্রিয় নেতা। তাকে এবার আমরা সংসদে দেখতে চাই। সেজন্য আমরা এখন থেকেই কাজ শুরু করেছি। দিনাজপুর-৪ (চিরিরবন্দর-খানসামা) আসনে তাকে ২০ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে মনোনয়ন দেয়া আমার প্রাণের দাবি। ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে আমরা আলহাজ্ব আফতাব উদ্দীন মোল্লাকে বিজয়ী করেই ঘরে ফিরবো। বিরামপুরের কাজী রাশেদুল ইসলাম বলেন, আনোয়ারুল ইসলাম একজন সৎ ও নির্ভিক মানুষ। বার বার কারা নির্যাতিত এ নেতার পক্ষে আমরা সকলেই ঐকবদ্ধ। ২০০৮ সালে মাত্র আড়াইশ ভোটে তাকে হারিয়ে দেয়া হয়। এবার আমরা সবাই সজাগ ও সচেতন। এবার তাকে বিজয়ী করতেই আমরা এখন থেকে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ