বুধবার ২০ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

তামিমের রিপোর্টে খারাপ কিছু আসার কথা না : বিসিবি চিকিৎসক

স্পোর্টস রিপোর্টার : পাকিস্তান সুপার লিগে খেলতে গিয়ে ইনজুরিতে পড়েছেন বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল খান। এরপর দ্রুতই পাকিস্তান থেকে থাইল্যান্ডে পাঠানো হয় তামিমকে। ব্যাংককে তামিমের চোটের অবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন চিকিৎসকরা। সেখানে এমআরআইও করা হয়। আর সে রিপোর্ট খুব একটা ভালো নয় বলেই গুঞ্জন উঠেছে। চিকিৎসকের পরামর্শ, অন্ততপক্ষে পাঁচ  থেকে ছয় সপ্তাহ যেন মাঠে না নামেন দেশসেরা এই ওপেনার। এমআরআই স্ক্যানে হাঁটুর অবস্থা খুব ভালো আসেনি। চিকিৎসকরা বলেছেন, এই অবস্থায় পুনর্বাসনে থাকাই সঠিক সিদ্ধান্ত হবে তামিমের জন্য। তবে এরপরও আজ একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেখানোর কথা। 

তিনিই তামিমকে জানিয়ে দেবেন, পরবর্তীতে কি করতে হবে। তবে রিপোর্টটি এখনও হাতে পায় নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাই এ নিয়ে নিশ্চিত কিছু বলতে পারেননি বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী। তারপরও এতো বেশি খারাপ খবর আসার কথা নয় বলেই জানালেন তিনি। দেবাশীষ বলেন, 'তামিম ওইখানে এমআরআই করেছে। ও কাল পরশু আসবে। আসলে তখন আমরা জানতে পারবো বিস্তারিত। ওর কি হয়েছে, খারাপ কি ভালো, এমন কিছু জানি না। আমার ধারণা রিপোর্টে এতো খারাপ কিছু আসার কথা না। তারপরও না দেখে কিছু বলতে পারছি না। আমাকে তামিম বলেছে ২৬ তারিখের (মার্চ) মধ্যে চলে আসবে। আসুক তারপর বলা যাবে।' তামিমকে ফাইনালে পেতে মরিয়া ফ্র্যাঞ্চাইজিটি দ্রুত তাকে থাইল্যান্ড পাঠায় উন্নত চিকিৎসার জন্য। কিন্তু তাতে খুব একটা লাভ হয়নি পেশোয়ারের। ফাইনালে তামিমকে পাচ্ছে না দলটি।  হাঁটুর ছোট্ট একটি সমস্যা তামিমের ছিলো অনেক আগে থেকেই। তেমন সিরিয়াস কিছু নয় বলেই নিয়মিত খেলে যাচ্ছেন। ধারণা করা হচ্ছে, সেখানেই হয়তো চোট পেতে পারেন। 

তামিম গত রোববার নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে খেলে কলম্বো থেকেই পিএসএলে  খেলতে উড়ে যান লাহোরে। এলিমিনেটর ম্যাচে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়ের্সের বিপক্ষে দলের জয়েও  রেখেছেন দারুণ ভূমিকা। ওপেন করতে নেমে ২৯ বলে ৫টি বাউন্ডারির সাহায্যে ২৭ রান করেছেন। তবে এরপরই দুঃসংবাদটি শুনতে হয় তাকে। টুর্নামেন্টের শুরুতে ৫টি ম্যাচে  খেলেছিলেন তিনি। মোট ছয়টি ম্যাচে অংশ নিয়ে ১৬১ রান করেছেন তামিম। গড় ৩২.২০।  পেশোয়ার রোববার রাতে করাচিতে এবারের পিএসএলের ফাইনালে খেলবে ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের বিপক্ষে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ