সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

রোহিঙ্গা নারীদের পাশবিক নির্যাতন করে আমাদের দেশে ঠেলে দেয়া হচ্ছে -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

শরীয়তপুর সংবাদদাতা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি বলেছেন, আপনারা যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে- সেভাবে মসজিদে খুতবায় জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে আলোচনা করুন। তাহলে মানুষ সচেতন হবে। আলেম ওলামা মাশায়েখগণ সঙ্গে থাকলে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের স্থান বাংলাদেশে হবে না। তিনি গুলশানে ইতালিয়ান নাগরিক হত্যা, পঞ্চগড়ের স্কন মন্দিরের পুরোহিত, শিয়া মসজিদের মুয়াজ্জিনকে গুলী করে হত্যা, শোলাকিয়ায় ঈদের দিনের হামলা ও গুলশান হলি আর্টিজানে সংঘঠিত জঙ্গি হামলার ঘটনা উল্লেখ করে বলেন, এসব হামলায় আমরা দেখেছি প্রথমে এটা আলেম-ওলামাদের দিকে ইঙ্গিত করা হলেও পুলিশের সবোর্চ্চস্তরের গোয়েন্দা সংস্থা দেখেছেন এটা আলেম ওলামাদের কর্ম নয়।
তিনি আরো বলেন, ১৯৭৮ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত মায়ানমারের আরকান রাজ্য থেকে বারবার রোহিঙ্গা মুসলমানদের আমাদের দেশে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। সেখানে যুবকদের হত্যা করা হয়েছে, নারীদের উপর অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে। প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম সহায় সম্বল হারিয়ে আমাদের দেশে আশ্রয় নিয়েছে। তখন আমাদের বাধা উপেক্ষা করে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুতুপালং আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার পর সেখানে তাকে জড়িয়ে নারী, শিশু ও বৃদ্ধারা কেঁদেছেন। তখন প্রধানমন্ত্রীসহ উপস্থিত সবাই কেঁদেছেন। সেই দৃশ্য মিডিয়ায় প্রচারিত হলে সারা বিশ্ব দেখে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মাদার অব হিউম্যান (মানবতার মা) বলে আখ্যায়িত করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে প্রশংসিত হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, আমরা সাড়ে ষোল কোটি মানুষ খেতে পারলে আশ্রয় নেয়া ১০ লাখ রোহিঙ্গাও খেতে পারবে। তিনি সেদিন বলেছিলেন, এটাই মানবতা, এটাই ধর্ম।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গতকাল রোববার দুপুরে শরীয়তপুর পুলিশ লাইন্স চত্বরে জেলা পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশিং এবং শরীয়তপুর জেলা ওলামা মাশায়েখ ফোরাম আয়োজিত জঙ্গিবাদ বিরোধী ওলামা মাশায়েখ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখেন, পুলিশের মহাপরিদর্শক একেএম শহিদুল হক বিপি এম পিপি এম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন. শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, সংরক্ষিত মহিলা এমপি এ্যাডভোকেট নাভানা আকতার, অতিরিক্ত মহাপুলিশ পরিদর্শক (ঢাকা বিভাগ) মোঃ শফিকুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) মাহবুবা আকতার, শরীয়তপুর পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল, ভোজেশ্বর বাজার বড় মসজিদের খতিব, আলহাজ হাফেজ মাওলানা শওকত আলী, আঙ্গারিয়া কওমিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আবু বকর সিদ্দিক। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, হাফেজ কেরামত আলী, মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন, মাওলানা আব্দুল বাতেন ফরিদি, মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক, আলহাজ কুদ্দুস তালুকদার, মাওলানা জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ