বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

চট্টগ্রাম আনোয়ারা থানার এক কিশোরীকে ৫ দিন ধর্ষণ

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) সংবাদদাতা : নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে চট্টগ্রাম আনোয়ারা থানার কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে নিজ বাড়িতে চরফকিরা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড, হানিফ চেয়ারম্যান খামারের আবদুল গণির ছেলে আজগর হোসেন (২২) ৫দিন ধর্ষণ করেছে। 

জানা যায়, চট্টগ্রাম আনোয়ারা থানার মাহাতা ইউনিয়নের ফরিদ সওদাগরের বাড়ির মোঃ শফির মেয়ে কলি আক্তার (১৮) ছোট বেলা থেকে আনোয়ারা থানার মৌলভী বাজার একটি জগ ফ্যাক্টরীতে কাজ করতো। তার সাথে নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড, হানিফ চেয়ারম্যান খামারের আবদুল গণির ছেলে আজগর হোসেন (২২) একই ফ্যাক্টরীতে চাকুরী করতো। দীর্ঘদিন চাকুরী করার পর আজগর হোসেন কলি আক্তারকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। এর মাঝে  ৩ বছর কেটে যাওয়ার পর আজগর   হোসেন তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। কলি আক্তার এই প্রতিবেদককে জানান, মৌলভী বাজার তিন মাস আমরা দুইজন একই বাসায় স্বামী স্ত্রীর মতই থাকতাম। হঠাৎ ১১ই নবেম্বর আজগর হোসেন কলি আক্তারকে তার গ্রামের বাড়িতে বিয়ে করার কথা বলে নিয়ে আসে। বাড়িতে আসার পর ৫দিন অতিবাহিত হওয়ার পর আজগর হোসেনের বাবা, মা কলি আক্তারকে তাদের ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য বলে। এর মাঝে স্থানীয় ইউপি মেম্বার ও সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ মিলে আজগরের পক্ষে গিয়ে কলি আক্তারকে ৫হাজার টাকা দিয়ে বিদায় করে দিতে চায়। কিন্তু কলি আক্তার স্বামী ছাড়া চট্টগ্রাম যাবেন না ছাপ জানিয়ে দেয়। এক পর্যায়ে চরএলাহী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার কামাল হোসেন ও ওয়ার্ড আ’লীগ সেক্রেটারি নুরুল আমিন নুকু কলি আক্তারকে ৫হাজার টাকা নিয়ে বসুরহাট বাস কাউন্টারে টিকেট কেটে দেয়। কিন্তু ধর্ষিতা কোন টাকা গ্রহণ না করে সেখান থেকে এসে থানায় উপযুক্ত বিচার পাওয়ার জন্য প্রশাসনের দারে দারে ২দিন পর্যন্ত ঘোরাঘুরি করেও কোন বিচার না পেয়ে হতাশায় ভুগছেন। কলি আক্তার আরও জানান, প্রশাসন যদি উপযুক্ত বিচার না করেন, তাহলে আমি তার বাড়িতে গিয়ে আত্মহত্যা করবো। 

এই ব্যাপারে ইউপি সদস্য কামাল উদ্দিন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এ ঘটনা শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে মেয়েকে ৫ হাজার টাকা দিয়ে সমাধা করে দেওয়া হয়েছে। ওয়ার্ড আ’লীগ সেক্রেটারি নুরুল আমিন নুকুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মেয়েকে বসুরহাট বাস কাউন্টারে টিকেট কেটে দিয়ে এসেছি। 

এই ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মোঃ ফজলে রাব্বী জানান, কলি আক্তার আজগর হোসেন এর কাছে বিয়ে বসতে চায়। এর বাহিরে সেই আর কোন বিচার চায় না। আমরা এই ব্যাপারে ছেলে পক্ষের সাথে আলোচনা করার জন্য তাদেরকে থানায় আসার জন্য বলেছি। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ