বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বাগমারায় সুদূর জাপান থেকে এসে পিতার অছিয়ত পালন করলেন

বাগমারা (রাজশাহী) সংবাদদাতা: পিতার অছিয়ত পালন অত্যাবশ্যক প্রত্যেক সন্তানের। অনেকে এ দায়িত্ববোধ ছোট করে দেখলেও তাড়া করে তার বিবেক। তবে বিপদ সঙ্কটে ইচ্ছা-অনিচ্ছা আর দায়িত্ব ও কর্তব্য ভিন্ন হতে পারে। এমন এক ইচ্ছার দায়িত্ব পালন করলেন রাজশাহীর বাগমারার প্রবাসী আব্দুল্লা ওরফে মঞ্জু। পিতার অছিয়ত পালন করতে সুদূর জাপান থেকে এসে জানাযায় শরীক হয়ে ইমামতি করলেন। এমন পুত্রের প্রশংসানীয় ঘটনায় এলাকার সর্বত্রই ছড়িয়ে পড়েছে। জানা গেছে, বাগমারার উপজেলার নন্দনপুর গ্রামের মাদ্রাসা শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রাণি বিদ্যা বিভাগের ছাত্র ছিলেন। গত ২/৩ বছর আগে ছাত্রবৃত্তি নিয়ে পিএইচডি করতে জাপানে যান। তার পিতা আব্দুর রাজ্জাক (৫৬) দীর্ঘ দিন ধরে পক্ষাঘাৎ রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুর আগে পিতা ছেলেকে তার জানাযা করার অছিয়ত করেছিলেন। গত সোমবার সকাল ৬টার দিকে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে ইন্তিকাল করেন (ইন্না ল্লিাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) পিতার মৃত্যুর খবরে প্রবাসী আব্দুল্লা আল মঞ্জু  সাথে সাথে সোমবার ছুটির আবেদন করে বাংলাদেশের উদ্দ্যেশ্যে রওনা দেন। গতকাল মঙ্গলবার বিমান যোগে দেশে এসে পিতার অছিয়ত পালন করতে বিকেল সাড়ে ৫টায় জানাযা অংশ নেয়। পিতা মৃত্যুর পর ছেলের দায়িত্ববোধ এলাকাবাসীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। মঞ্জু জানান, ইচ্ছা, দায়িত্ববোধ আর সর্বোপরি আল্লার মেহেরবাণীতি  পিতার জানাযায় তিনি অংশগ্রহণ করতে পেরেছেন। তিনি সকলের কাছে তার পিতার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া চেয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ