বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সৈয়দপুর বিমানবন্দর সড়কের কাজ চলছে

সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা: নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের গুরুত্বপূর্ণ বিমানবন্দর সড়ক প্রশস্তকরণের মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ জোরেশোরে চলছে। দৃষ্টিনন্দন এই সড়ক উন্নয়ন কাজে প্রায় ১৭ কোটি টাকা ব্যয় হচ্ছে। ইতোমধ্যে এই প্রকল্পের ৬০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে সৈয়দপুর পৌরসভা। এ সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ হলে যাত্রীরা অতি সহজে বিমানবন্দরে পৌঁছতে পারবেন। সেই সাথে পাল্টে যাবে শহরের দৃশ্যপট ও যান চলাচলে ফিরে আসবে শৃঙ্ঘলা।
প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, বিশ্বব্যাংকের মিউনিসিপ্যাল গভর্নেন্স অ্যান্ড সার্ভিসেস প্রজেক্টের (এমজিএসপি) আওতায় এই মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এই প্রকল্পের অধীনে একমুখী বিমানবন্দর সড়ককে দুই লেনে উন্নীত করা হচ্ছে। শহরের পাঁচমাথা মোড় থেকে পার্বতীপুর সড়ক মোড় ও বিমানবন্দর পর্যন্ত সাড়ে ৩ কিলোমিটার সড়ক ৪৫ ফুট প্রসশÍ করা হচ্ছে।
বিমান যাত্রী ও শহরবাসীর যাতায়াত নির্বিঘœ ও যানজটমুক্ত করতে সড়কটি উন্নীত করা হচ্ছে দুই লেনে। এই সড়কের দুই পাশে থাকবে হাঁটাপথ (ফুটপাথ)। টাইলস দিয়ে মোড়ানো হচ্ছে। সড়কটি দৃষ্টিনন্দন করতে সড়কের মধ্যবর্তী ডিভাইডারে বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষ রোপণ করা হবে। বৃষ্টি ও বর্ষায় পানি নিষ্কাশনের জন্য সড়কের দুই পাশে নির্মাণ করা হচ্ছে কংক্রিটের ড্রেন। রাতের বেলা সৌন্দর্য বাড়াতে এলইডি বাতি দিয়ে সজ্জিত করা হবে। বিশ্বব্যাংকের কারিগরী দল কাজের সার্বক্ষণিক তদারকি করছেন।
ইতোমধ্যে কাজের অগ্রগতি দেখতে এমএসপি প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক শেখ সুজাক্কার জহির ও উপ-পরিচালক এএসএম কবীরের নেতৃত্বে বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিনিধি দল কয়েক দফা কর্মএলাকা পরিদর্শন করেছেন। এসময় তারা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও পৌর মেয়র অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকারের সাথে বৈঠক করে প্রকল্প সম্পর্কে তাদের পরামর্শ তুলে ধরেছেন।
সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার জানান, সৈয়দপুরের এই মেগা প্রকল্পের সুফল যাতে শহরবাসী দ্রুত সময়ের মধ্যে পান তার দ্রুতগতিতে কাজ চলছে। এ কাজে পৌরসভার প্রকৌশল বিভাগ নিবিড়ভাবে কাজ করছে। আগামি ২০১৮ সালের নববর্ষের সূচনায় সড়কটি উপহার দেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মেয়র।
প্রকল্পের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নাদের এন্টারপ্রাইজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহনেওয়াজ হোসেন শানু জানান, নির্মাণ শর্ত মেনে সড়কটি নির্মাণে মান বজায় রাখা হচ্ছে। বাস্তবায়নের লক্ষ্য স্থির করা হয়েছে আগামি ২০১৮ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি। তবে তার আগেই কাজ শেষ করার জন্য পৌরসভার প্রকৌশলীদের সঙ্গে ২শ’ শ্রমিককে নিয়োজিত করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত বছরের নভেম্বর মাসে এ মেগা প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। জাঁকজমকভাবে এই প্রকল্পের উদ্বোধন করেন পৌরসভার চতুর্থ বারের মতো নির্বাচিত মেয়র অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ