বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ইসরাইলী আগ্রাসনে ‘দুই জাতি দুই রাষ্ট্র’ নীতি সংকটে

স্টাফ রিপোর্টার : ফিলিস্তিন ও ইসরাইল দুটি পৃথক রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠার যে আন্তর্জাতিক উদ্যোগ তার প্রতি বাংলাদেশ সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল বৃহস্পতিবার তাঁর তেজগাঁওস্থ কার্যালয়ে সফররত ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে একথা বলেন বলে সরকারি বার্তা সংস্থা বাসস জানিয়েছে। এ দিকে দিনভর ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন সফররত ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ফিলিস্তিনী প্রতিনিধি দলের পক্ষে মাহমুদ আব্বাস নিজ নিজ দলের নেতৃত্ব দেন। বৈঠকের পরে সাংবাদিদের ব্রিফ করেন পররাষ্ট্র সচিব মো শহীদুল হক। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
প্রেসব্রিফিং এ পররাষ্ট্র সচিব বলেন, বাংলাদেশ ফিলিস্তিনিদের স্বতন্ত্র জাতিসত্তায় সমর্থন করে বলেও প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে উল্লেখ করেছেন। ফিলিস্তিনে সংকটময় পরিস্থিতি বিদ্যমান থাকার উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইসরাইল ও ফিলিস্তিন ইস্যু সমাধানে দীর্ঘদিন চলমান ‘দুই জাতির জন্য দুই রাষ্ট্র’ নীতিটিও বর্তমানে ফিলিস্তিনে ইসরাইলের আগ্রাসনের কারণে প্রশ্নের মুখে পড়েছে।
শহীদুল হক বলেন, বিভিন্ন প্রতিকূলতা সত্ত্বেও বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক মহলের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে, ফিলিস্তিন ও ইসরাইল দুটি পৃথক রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠার উদ্যোগের প্রতি তাঁর সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেছে।
একইসঙ্গে বাংলাদেশ ফিলিস্তিনী জনগণের জন্য জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে তাঁর অকুণ্ঠ সমর্থন অব্যাহত থাকবে বলেও জানায়, বলেন পররাষ্ট্র সচিব।
পরে দুই দেশের মধ্যে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে একটি যৌথ কমিশন গঠনে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। দুই নেতা এই স্বাক্ষর অনুষ্ঠান প্রত্যক্ষ করেন। এরপর মাহমুদ আব্বাস পরিদর্শক বইয়ে স্বাক্ষর করেন।
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সাদর অভ্যর্থনা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকের জন্য গতকাল বিকেলে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছলে তাঁকে সেখানে অভ্যর্থনা জানানো হয়।
প্রধানমন্ত্রী তাঁর কার্যালয়ে ৩টা ২৩ মিনিটে ফুলের তোড়া উপহার দিয়ে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্টকে অভ্যর্থনা জানান। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী ও মুখ্য সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
জাতীয় স্মৃতিসৌধ ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন: ফিলিস্তিনের সফররত প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। এ ছাড়া তিনি ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করেন এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।
জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। তিনি সেখানে পরিদর্শন বইতে স্বাক্ষর এবং বকুল ফুলের একটি চারা রোপণ করেন।
মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী এ কে এম মোজাম্মেল হক এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমান স্মৃতিসৌধে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানান। পরে প্রেসিডেন্ট আব্বাস ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট এই বাড়িতেই জাতির পিতা ঘাতকদের হাতে সপরিবারে শহীদ হন।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম এবং শেখ রেহানার পুত্র রেদোয়ান মুজিব সিদ্দিক বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্টকে অভ্যর্থনা জানান।
ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের আমন্ত্রণে গতকাল বুধবার বিকেলে ঢাকা পৌঁছেছেন। তিনদিনের সফর শেষে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট আজ শুক্রবার ঢাকা ত্যাগ করবেন।
এটাই মাহমুদ আব্বাসের প্রথম বাংলাদেশ সফর। অবশ্য এর আগে গতবছর ফেব্রুয়ারিতে তিনি জর্ডান থেকে জাপান যাওয়ার পথে ঢাকায় সংক্ষিপ্ত যাত্রাবিরতি করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ