শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

অন্যের জমি দখল করতে না পেরে গাছের সাথে শত্রুতা

সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা : জমি সংক্রান্ত দ্বন্দ্বের জের ধরে শামসুল হক নামের এক কৃষকের বাড়িঘর ভাংচুর, অগ্নিসংযোগসহ প্রায় সাড়ে ৪০০ গাছ কেটে ফেলেছে সন্ত্রাসীরা। সম্প্রতি বিকেলে এ ঘটনা ঘটেছে সৈয়দপুরের পার্শ্ববর্তী চিরিরবন্দর ফতেজংপুর ইউনিয়নের দেবীগঞ্জ ডাঙ্গাপাড়া এলাকায়। এ নিয়ে স্থানীয় থানায় মামলা হয়েছে।
মামলা সূত্রে জানা যায়, চিরিরবন্দর ফতেজংপুর ইউনিয়নের দেবীগঞ্জ ডাঙ্গাপাড়ার কালু মামুদের ছেলে সামসুল হক বিগত ৫ বছর আগে একই এলাকার রেয়াজ, জহুরুল, জিকরুল ও নজুর কাছে ৩৪ ও ৩৪০১ দাগের মোট ৪১ শতক জমি ক্রয় করে বসবাস সহ চাষাবাদ করে আসছেন। অন্যদিকে একই এলাকার প্রভাবশালী আফজাল হোসেন ম্ন্সুী ওই জমির অন্য ওয়ারিশের কাছে ক্রয় করেন ৪৭ শতক জমি। তিনি জমি ক্রয় করার পরপরই সামসুল হকের দখলকৃত জমি বেদখল দিতে যায়। কিন্তু এলাকাবাসীর চাপে ওইদিন তিনি বেদখল নিতে পারেননি। গত মঙ্গলবার সামসুল হক সওদা কিনতে পার্শ্ববর্তী বাজারে গেলে আফজাল মুন্সীসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীরা অতর্কিত হামলা চালায়। ওই সময় সামসুলের স্ত্রী বিজলী বেগম (৩৫), ভাই মোসলেম উদ্দিন (৪৫) ও তার স্ত্রী জমিলা বেগম (৩৮) বাধা দিতে চেষ্টা করলে তাদের গরু পেটা করে রক্তাক্ত করা হয়। পরে তারা জমিতে রোপণ করা প্রায় ৩০০ কলা গাছ এবং ১৫০টি আম ও লিচু গাছ কেটে ফেলে। এছাড়া ওই বাড়িতে থাকা নগদ ৮০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে অগ্নিসংযোগ করার সময় সামসুল হকের পরিবারের আত্মচিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এলে সন্ত্রাসী বাহিনীরা পালিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে আফজাল মুন্সী জানায়, তার কাজ তিনি করেছেন। কারও সাহস থাকলে তার বিরুদ্ধে মামলা করে দেখাক। আজ হোক বা কাল হোক ওই জমি তিনি বেদখল দিবেন বলে হুশিয়ার সংকেত দেন। কারণ ওই জমির মালিকের কাছে তিনিও ৪৭ শতক জমি ক্রয় করেছেন।
ওই ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ লুনার জানান, ক্রয়কৃত সঠিক দাগের জমি সামসুল হক ভোগদখল করে আসছেন। আফজাল মুন্সী তিনিও ওই দাগের জমি কিনেছেন। কিন্তু তিনি অন্যের জমি বেদখল করতে গিয়ে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে গুরুতর অপরাধ করেছেন। মামলার সূত্র ধরে সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে সন্ত্রাসী বাহিনীদের শাস্তি পাওয়া উচিত বলে জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ