শুক্রবার ০২ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

শীতলক্ষ্যা নদীর ভরাটকৃত ২ একর জায়গা অবমুক্ত

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা: নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের চরশিমুলপাড়া এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীর তীর দখল করে ভরাটকৃত প্রায় ২ একর জায়গা অবমুক্ত করেছে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের কর্মকর্তারা। স্থানীয় একটি চক্র নদীর তীর দখল করে অবাধে বালু ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। পরে দিনব্যাপী একটি এক্সাভেটরের (ভেকু) সাহায্যে প্রায় ২ একর জমি থেকে বালু উত্তোলনের মাধ্যমে নদীর জায়গা নদীকে ফিরিয়ে দেয়া হয়। এছাড়া উত্তোলনকৃত বালু ২ লাখ ৪০ টাকা দরে নিলামে বিক্রি করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শামীম বানু শান্তির নেতৃত্বে অভিযান শুরু হলেও এর আগেই পালিয়ে যায় দখলদার অবৈধ বালু ব্যবসায়ীরা। এ সময় বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক একেএম আরিফ উদ্দিন, সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম রেজা, সিদ্ধিরগঞ্জ ভূমি অফিসের তহসীলদারসহ পুলিশ প্রশাসনের লোকজন। এছাড়া বিআইডব্লিউটিএর উচ্ছেদকারী জাহাজ করতোয়া ও উচ্ছেদকর্মীরা অভিযানে অংশ নেয়।
বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক একেএম আরিফ উদ্দিন জানান, সিদ্ধিরগঞ্জের চরশিমুলপাড়া এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীর তীরের প্রায় ২ একর জায়গা দখল করে স্থানীয় কিছু লোক অবৈধভাবে বালু ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকেল অবধি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শামীম বানু শান্তির নেতৃত্বে অভিযানকালে দখলকৃত স্থান থেকে একটি এক্সাভেটরের সাহায্যে প্রায় ৬০ হাজার বর্গফুট বালু উত্তোলন করে নদীর জায়গা নদীকে ফিরিয়ে দেয়া হয়। উত্তোলনকৃত বালুর মধ্যে ভরাটবালু ছিল ৫০ হাজার বর্গফুট ও সিলেক্ট বালু ছিল ১০ হাজার বর্গফুট। পরে উত্তোলনকৃত বালু নিলামে বিক্রি করা হয়। নিলামে ৭ জন অংশ নেন। তার মধ্যে শরীফ সর্বোচ্চ ২ লাখ টাকা দর দেন। যা আয়কর ও ভ্যাটসহ সর্বমোট ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা দাঁড়ায়।
আরিফউদ্দিন আরো জানান, নদী দখলদারদের বিরুদ্ধে বিআইডব্লিউটিএ’র অভিযান অব্যাহত আছে। দখলদাররা যতই প্রভাবশালী হোক না কেন তাদেরকে কোন ধরনের ছাড় দেয়া হবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ