বৃহস্পতিবার ০১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেন বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা : নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের ভোটের আগেই সন্ত্রাসীসহ সকল অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে কমিশনের প্রতি আহ্বান রেখেছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান। সেই সঙ্গে তিনি বৈধ অস্ত্রও জমা দেয়ার ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেছেন। সরকারি দলের সন্ত্রাসীরা ভোটের আগে বিএনপির সমর্থকদের হুমকি ধামকি দিতে পারে এমন আশঙ্কা করেছে। গতকাল বুধবার দুপুর পৌনে ১২টায় নাসিক নির্বাচনের জেলা রিটার্নিং অফিসে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য গিয়াস উদ্দিন ও সাবেক এমপি আবুল কালামকে সঙ্গে নিয়ে মনোনয়নপত্র সংগ্রহের সময়ে তিনি ওই আহবান রাখেন। তখন রিটার্নিং অফিসার নুরুজ্জামান তালুকদারের কাছে ক্ষমতাসীন নেতাদের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ দাবি করেন সাখাওয়াত। এ ছাড়া তিনি সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে সেনামোতায়েনের দাবি করেন। 
রিটার্নিং অফিসারকে তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জের পরিস্থিতি সবার জানা আছে। তাই নির্বাচনের আগেই শহর থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার জরুরী। এ ছাড়াও যাদের কাছে বৈধ অস্ত্র আছে তারাও যেন এসব অস্ত্র নিয়ে নির্বাচনী প্রচারে আসতে না পারে সে ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবি করেন তিনি। এ সময় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনেরও দাবি করেন সাখাওয়াত।
অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত দাবি করেন, নারায়ণগঞ্জে এখনও নির্বাচনের জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি হয়নি। সবদলের অংশগ্রহণে নির্বাচন করতে হলে সবাইকে সমান সুযোগ দেয়ারও আহ্বান জানান তিনি।
জবাবে রিটার্নিং অফিসার তাকে আশ্বস্ত করে বলেন, অচিরেই এসব ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তিনি জানান, ৫ ডিসেম্বর হতে নির্বাচন কমিশন বেশ কঠোর থাকবে। এ নির্বাচন সফল করতে যা যা করার দরকার সব করা হবে। সব প্রার্থীকে সমান বিবেচনায় নেয়া হবে। এরপর রিটার্নিং অফিসের কার্যালয় থেকে বেরিয়ে অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান সাংবাদিকদের বলেন, নারায়ণগঞ্জে বিএনপির ৬০ ভাগ ভোট রয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে এ নির্বাচনে বিএনপিরই জয় হবে।
এদিকে বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান মনোনয়নপত্র সংগ্রহে নারায়ণগঞ্জের সাবেক দুই এমপি অংশগ্রহণ করলেও জেলা বিএনপির সভাপতি এড. তৈমুর আলম খন্দকারসহ তার কোনো অনুসারী উপস্থিত হয়নি। এছাড়া নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকেও দেখা যায়নি।
৮৬৭ ভোটের লড়াইয়ে ৩৪ প্রার্থী : নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আজ বৃহস্পতিবার। এ নির্বাচনে বিএনপির জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ প্যানেল ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ প্যানেল থেকে ১৭টি পদে  একজন করে মোট ৩৪ জন প্রার্থী লড়াইয়ে নেমেছেন। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত এ ভোট গ্রহণ করা হবে। এবারের নির্বাচনে মোট ভোটার রয়েছে ৮’শ ৬৭ জন আইনজীবী। এ নির্বাচন পরিচালনার জন্য ৫ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন কমিশন রয়েছে যেখানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম ও সদস্য অ্যাডভোকেট আশরাফ হোসেন, অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান, অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির ও অ্যাডভোকেট কামরুন নাহার। এছাড়াও তিন সদস্য বিশিষ্ট আপিল বোর্ডে রয়েছেন অ্যাডভোকেট শওকত আলী, অ্যাডভোকেট রমজান আলী ও অ্যাডভোকেট হারুন উর রশিদ।
নির্বাচনে বিএনপির জাতীয়তাবাদী ঐক্য পরিষদ প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল বারী ভুইয়া ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী সমিতির সাবেক সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সৈয়দ মশিউর রহমান শাহিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে অ্যাডভোকেট সামসুজ্জামান খান খোকা, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট বিল্লাল হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ জাকির, কোষাধ্যক্ষ পদে অ্যাডভোকেট আনিসুুর রহমান মোল্লা, আপ্যায়ন সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী, ক্রীড়া সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির হৃদয়, লাইব্রেরি সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট আশরাফুল আলম সিরাজী রাসেল, সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম মাসুম, সমাজ সেবা সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট শারমীন আক্তার, আইন ও মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট শরীফুল ইসলাম শিপলু এবং কার্যকরী কমিটির সদস্য পদে অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান লিংকন, অ্যাডভোকেট মামুন মাহামুদ মিয়া, অ্যাডভোকেট আনজুম আহম্মেদ রিফাত, অ্যাডভোকেট রাসেল প্রধান ও অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম আনু।
নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সভাপতি প্রার্থী সমিতির বর্তমান সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন বন্দর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট হাবিব আল মুজাহিদ পলু। এছাড়াও এ প্যানেলে সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে অ্যাডভোকেট আলাউদ্দীন আহম্মেদ, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট দেলোয়ারা বেগম রীনা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে অ্যাডভোকেট কামাল হোসেন, কোষাধ্যক্ষ হিসেবে অ্যাডভোকেট সোহেল মিঞা, আপ্যায়ন সম্পাদক অ্যাডভোকেট একেএম ওমর ফারুক ভুইয়া, লাইব্রেরি বিষয়ক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট আসাদুর রহমান বিপ্লব, ক্রীড়া সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট মাহামুদুল হক মমিন, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট শরীফ হোসেন, সমাজ সেবা সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, আইন ও মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট রাজিয়া আমিন কানচি এবং কার্যকরী সদস্য পদে অ্যাডভোকেট সাজ্জাদুল হক সুমন, অ্যাডভোকেট মাসুম ভুইয়া, অ্যাডভোকেট রনজিৎ চন্দ্র দে, অ্যাডভোকেট স্বপন ভুইয়া ও অ্যাডভোকেট রাশেদ ভুইয়া।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ