বৃহস্পতিবার ০১ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

দায়িত্বশীল দেশ হিসেবে যতটুকু করা দরকার বাংলাদেশ ততটুকুই করছে -পররাষ্ট্র সচিব

স্টাফ রিপোর্টার : মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনীর দমনপীড়নের কারণে সৃষ্ট মানবিক সংকটে বাংলাদেশ উদ্বেগ জানিয়েছে। অবিলম্বে সেখানকার নিরাপত্তা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটাতে দেশটিকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে ঢাকায় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত মিউ মিন সানকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করে এ উদ্বেগ জানানো হয়।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (দ্বিপক্ষীয় বিষয়াবলি) কামরুল হাসানের কার্যালয়ে তাকে তলব করা হয়।
বৈঠক শেষে বেরিয়ে কামরুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতের কাছে আমাদের উদ্বেগ তুলে ধরেছি। সেখানকার লোকজনের দেশে ফিরে যাওয়ার পথ নিশ্চিত করতে আমরা তাদের পরিস্থিতির উন্নতি ঘটাতে বলেছি। এ ব্যাপারে রাষ্ট্রদূতের হাতে একটি কূটনৈতিক পত্র দেওয়া হয়েছে।
এদিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে পররাষ্ট্র সচিব এম. শহীদুল হক বলেছেন, একটি দায়িত্বশীল দেশ হিসেবে যতটুকু করা দরকার মিয়ানমার প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ততটুকুই করছে। তিনি আরও বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানের জন্য সমস্যার উৎস কী তা জনতে হবে। এই সমস্যার সমাধান মিয়ানমারকেই করতে হবে।
মিয়ানমারে রোহিঙ্গা ইস্যুতে চলমান উত্তেজনা বিষয়ে বাংলাদেশের অবস্থান নিয়ে জানতে চাওয়া হলে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী মিয়ানমারের রাষ্ট্রপতি ও স্টেট কাউন্সিলর অং সান সুচি’র সঙ্গে একাধিকবার বিভিন্ন মাধ্যমে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছেন। আমি পাঁচবার এই ইস্যুতে সমাধান খোঁজার জন্য মিয়ানমার সফর করেছি।
তিনি বলেন, কাউকে যখন জোর করে উচ্ছেদ করা হয়, তখন এর পেছনে কারণ কী তা জানতে হয়। তা না হলে এই সমস্যার সমাধান করা যায় না। সচিব আরও বলেন, কূটনীতিতে সবকিছু বলা যায় না, সবকিছু বলা উচিতও না।
গত মাস থেকে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংস হামলা চলছে। সেখানে আন্তর্জাতিক ত্রাণকর্মীদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। এ হামলা অব্যাহত থাকায় আন্তর্জাতিক উদ্বেগ বাড়ছে। বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী রাজ্যটিতে জঙ্গি নিধনের নামে নির্বিচারে হত্যা, নারী ও শিশুদের নির্যাতন এবং বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ